‘৫ বছরে কোহলির অর্জনে পৌঁছাবে বাবর’ ‘৫ বছরে কোহলির অর্জনে পৌঁছাবে বাবর’ – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর ডেস্ক :: বিরাট কোহলি আর বাবর আজমের তুলনা এখন হচ্ছে হরদম। বাবর নিজে যদিও বারবার বলছেন, এই তুলনা তার পছন্দ নয়। একই সুর এবার শোনা গেল ইউনিস খানের কণ্ঠে। সাবেক পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানের মতে, কোহলি এখন যে জায়গায় আছেন, ৫ বছর পর সেই উচ্চতা স্পর্শ করবেন বাবর।

 

আগামী অগাস্ট-সেপ্টেম্বরে সম্ভাব্য ইংল্যান্ড সফরের জন্য পাকিস্তানের ব্যাটিং কোচ হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে ইউনিসকে। নতুন দায়িত্ব নেওয়ার পরপরই কোহলি-বাবরকে নিয়ে চলমান কথার স্রোতে গা ভাসাতে হলো তাকে। সংবাদমাধ্যমের প্রশ্নে পাকিস্তানের সফলতম টেস্ট ব্যাটসম্যান বুধবার জানালেন তার ভাবনা।

 

“ এই ধরণের তুলনাই আমার পছন্দ নয়। কোহলিকে দেখুন, এখন সে নিজের খেলার চূড়ায় আছে। কোহলি আজ যেখানে আছে, এখনও পর্যন্ত যা কিছু অর্জন করেছে, বাবর সেখানে পৌঁছবে আগামী ৫ বছরে।”

 

“ আমার মনে হয়, ৫ বছর পর যদি আমরা তুলনা করি, তাহলে বেশি উপযুক্ত হবে।”

 

বাবর আজমের বয়স এখন ২৫। সীমিত ওভারের দুই সংস্করণেই তিনি পাকিস্তানের অধিনায়ক। আইসিসি টি-টোয়েন্টি ব্যাটসম্যানদের র‍্যাঙ্কিংয়ে তিনি শীর্ষে, ওয়ানডেতে তৃতীয় আর টেস্টে পঞ্চম। ৩১ বছর বয়সী কোহলি টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে আছেন দুইয়ে, ওয়ানডেতে শীর্ষে আর টি-টোয়েন্টিতে দশ নম্বরে। অনেক রেকর্ড তিনি নিজের করে নিয়েছেন, সামনে হাতছানিও আছে অনেক।

 

টেস্টে ১০ হাজার রান করা একমাত্র পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান ইউনিস। সেঞ্চুরিতেও তার ধারেকাছে নেই কেউ। ইউনিসের চাওয়া, তাকে ছাড়িয়ে বাবর সময়ের সঙ্গে হয়ে উঠুক কিংবদন্তি।

 

“আমার ভালো লাগবে বাবরকে আরও অনেক দারুণ কিছু অর্জন করতে দেখলে ও কিংবদন্তি হতে দেখলে। আমি চাই, সে আমাকে ও আমার রেকর্ড ছাড়িয়ে যাক। ”

 

“ তবে আমার মনে হয়, খুব বেশি প্রত্যাশার ভার ওর ওপর চাপিয়ে দেওয়া যাবে না। তাকে সময় ও সুযোগ দিতে হবে যেন সামনে এগিয়ে যেতে পারে এবং একসময় শচিন টেন্ডুলকার, জাভেদ মিয়াঁদাদের মতো গ্রেটদের মতো কিছু করতে পারে।”
গত বছরও এই তালিকার শীর্ষে ছিলেন মেসি। কিন্তু এবার তাঁকে সরিয়ে দিলেন টেনিস তারকা রজার ফেদেরার।

 

বলা হচ্ছে সবচেয়ে বেশি আয় করা ক্রীড়াবিদদের নিয়ে বানানো ফোর্বসের তালিকার কথা। বিভিন্ন টুর্নামেন্ট থেকে প্রাপ্ত প্রাইজমানি ও বিভিন্ন পণ্যের দূতিয়ালি করে প্রাপ্ত উপার্জনের এই তালিকায় বছরে দশ কোটি ৬৩ লাখ ডলার আয় করে সবার ওপরে আছেন গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের দিক দিয়ে পুরুষ টেনিসের ইতিহাসের সর্বসেরা এই খেলোয়াড়। বাংলাদেশি হিসেবে যা প্রায় ৯০২ কোটি টাকার সমান। সাড়ে দশ কোটি ডলার নিয়ে তাঁর ঠিক পেছনেই আছেন ইতালিয়ান ক্লাব জুভেন্টাসের পর্তুগিজ তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তাঁর বাৎসরিক উপার্জন সাড়ে দশ কোটি ডলার বা প্রায় ৮৯১ কোটি টাকা।

 

এই দুজনের পরে আছেন মেসি। গতবার শীর্ষে থাকা এই ক্রীড়াবিদ এবার রোনালদোর চেয়ে দশ লাখ ডলার কম আয় করেছেন। বাংলাদেশি হিসেবে যা প্রায় ৮৮৩ কোটি টাকার সমান। পিএসজির ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার নয় কোটি ৫৫ লাখ ডলার নিয়ে আছেন ঠিক মেসির পেছনে। টাকার হিসেবে ৮১০ কোটি টাকার মতো। বাস্কেটবল তারকা লেব্রন জেমস আছেন তাঁর পেছনে। লস অ্যাঞ্জেলস লেকার্সের এই কিংবদন্তি তারকা বছরে উপার্জন করেন ৮ কোটি ৮২ লাখ ডলারের মতো।

 

এই তালিকার শীর্ষ দশে মেসি, রোনালদো ও নেইমার ছাড়া আর কোনো ফুটবল তারকা নেই। শীর্ষ দশ কী, শীর্ষ বিশেও নেই কেউ। ফেদেরার ছাড়া নেই কোনো টেনিস তারকাও। শীর্ষ দশে দেখা যায়নি খেলার মাঠে ফেদেরারের প্রবল দুই প্রতিপক্ষ রাফায়েল নাদাল ও নোভাক জোকোভিচকে। শীর্ষ দশের বাকী স্থানগুলোতে বাস্কেটবল, গলফ ও এনএফএল তারকাদের জয়জয়কার।

 

বক্সিং তারকা টাইসন ফিউরি আছেন ১১তম স্থানে (পাঁচ কোটি ৭০ লাখ ডলার), ইউএফসি তারকা কনর ম্যাকগ্রেগরকে রাখা হয়েছে ১৬তম স্থানে (চার কোটি ৪৮ লাখ ডলার)। টাইসন ফিউরির দুই প্রতিপক্ষ অ্যান্থনি জোশুয়া ও দিওন্তে ওয়াইল্ডার আছেন যথাক্রমে ১৯ ও ২০ নম্বর স্থানে। অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জিতে ২০২০ সাল শুরু করা জোকোভিচ আছেন ২৩তম স্থানে। রাফায়েল নাদাল আছেন ২৭তম স্থানে। আর নারী অ্যাথলেটদের মধ্যে শীর্ষে আছেন নাওমি ওসাকা। ৩ কোটি ৭৪ লাখ ডলার আয় করে আছেন ২৯ নম্বরে।

নেইমারের পর ফুটবল তারকা হিসেবে স্থান পেয়েছেন লিভারপুলের মিসরীয় ফরোয়ার্ড মোহাম্মদ সালাহ, তাও ৩৪ নম্বরে। শীর্ষ পঞ্চাশে থাকা বাকি ফুটবল তারকাদের মধ্যে রয়েছেন পিএসজির ফরাসি স্ট্রাইকার কিলিয়ান এমবাপ্পে (৩৬), আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা (৪৬) ও মেসুত ওজিল (৪৯)।

স্পোর্টসট্যুর২৪ডটকম/আরআই-কে

শেয়ার করুন :