১৬ বছর পর ফিরেই ম্যান সিটিকে রুখে দিল লিডস! ১৬ বছর পর ফিরেই ম্যান সিটিকে রুখে দিল লিডস! – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর ডেস্ক :: লিডস ইউনাইটেড সবশেষ প্রিমিয়ার লিগ খেলেছিল ২০০৩-০৪ মৌসুমে। দীর্ঘ ১৬ বছর পর এবার তাঁরা ফিরে এসেছে লিগে। এসেই খেলছে দারুণ। তাঁদের উজ্জীবিত ফুটবলে আটকে গেছে ম্যানচেস্টার সিটি।

 

কাল রাতে নিজেদের মাঠে ম্যান সিটির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে লিডস ইউনাইটেড। রাহিম স্টার্লিংয়ের গোলে এগিয়ে গিয়েছিল ম্যান সিটি। পরে রদ্রিগো সমতায় ফেরান লিডসকে।

 

লিডস ইউনাইটেড এবার লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলের বিপক্ষে দুর্দান্ত লড়ে ৪-৩ গোলে হার মানে। পরের দুই ম্যাচে তুলে নেয় তাঁরা জয়। এবার করলো ড্র। চার ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে লিগে পাঁচ নম্বরে আছে দলটি।

 

অন্যদিকে তিন ম্যাচে এক জয়, এক হার ও এক ড্রয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে দশম স্থানে ম্যানচেস্টার সিটি।

 

ম্যাচটি ছিল সময়ের অন্যতম সেরা কোচ পেপ গুয়ার্দিওলা ও তাঁর কোচিং ক্যারিয়ারের প্রেরণা মার্সেলো বিয়েলসার দলের মধ্যে। লড়াইটা জমলোও বেশ। ম্যাচের প্রথমার্ধে ৬০ শতাংশের বেশি সময় বল নিয়ন্ত্রণে রাখে ম্যান সিটি। কিন্তু বিরতির আগে খেই হারিয়ে ফেলা দলটির ওপর দ্বিতীয়ার্ধে চেপে বসে লিডস।

 

ম্যাচের চতুর্থ মিনিটে ভালো সুযোগ পেয়েছিল ম্যান সিটি। তবে কেভিন ডে ব্রুইনের ফ্রি-কিক পোস্টে বাধা পায়।

 

১৭তম মিনিটে ডি-বক্সে বল পান স্টার্লিং। আড়াআড়ি এগিয়ে ডান পায়ের শটে ঠিকানা খুঁজে নেন তিনি।

 

২৫তম মিনিটে লিডস সুযোগ পেয়েছিল। কিন্তু স্টুয়ার্ট ডালাসের দারুণ প্রচেষ্টা দুর্দান্তভাবে ঠেকিয়ে দেন ম্যান সিটির ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক এডেরসন।

 

প্রথমার্ধের শেষ ১০ মিনিট উজ্জীবিত ফুটবল খেলতে থাকে লিডস। বিরতির ঠিক আগে বাঁজামাঁ মঁদির হারানো বল ধরে ডি-বক্সে একজনকে কাটিয়ে শট নেন লুক এইলিং। এবারও ম্যান সিটিকে দারুণ নৈপুণ্যে রক্ষা করেন এডেরসন।

 

দ্বিতীয়ার্ধেও ম্যান সিটিকে চেপে ধরে লিডস ইউনাইটেড। ৫৯তম কর্নার থেকে উড়ে আসা বল ঠিকমতো পাঞ্চ করতে পারেন নি ম্যান সিটির গোলরক্ষক। ছোট ডি-বক্সের জটলার মধ্যে বল পেয়ে জাল খুঁজে নেন রদ্রিগো।

 

৭০তম মিনিটে ফের দলক্ষে রক্ষা করেন ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক এডেরসন। গেল মাসে ভ্যালেন্সিয়া থেকে লিডসে যোগ দেওয়া রদ্রিগোর হেড প্রাণান্ত চেষ্টায় ঠেকিয়ে দেন তিনি।

 

প্রথমার্ধে ৬০ শতাংশ বল দখল রাখা ম্যান সিটি ম্যাচ শেষের পরিসংখ্যানে বল দখলে ছিল সামান্য পিছিয়ে। লক্ষ্যে শট নেওয়ায়ও এগিয়ে ছিল লিডস। পেপ গুয়ার্দিওলার ম্যান সিটি ২৩ শটের মধ্যে ২টি ছিল মাত্র লক্ষ্যে। বিয়েলসার দলের নেওয়া ১২ শটের ৭টিই লক্ষ্যে ছিল।

 

লিগে চার ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে এভারটন। দুইয়ে লেস্টার সিটি, তিনে লিভারপুল, চারে চেলসি।

শেয়ার করুন :