সিলেট সিক্সার্সকে আইনি নোটিশ দিল বিসিবি সিলেট সিক্সার্সকে আইনি নোটিশ দিল বিসিবি – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর প্রতিবেদক :: ফেডারেশন অব ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনের (ফিকা) বার্ষিক প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার পর দেশের ক্রিকেটাঙ্গনে খানিকটা ধাক্কা লেগেছে। ফিকার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) কয়েকজন খেলোয়াড় নিজেদের পারিশ্রমিক পান নি।

 

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, তিন ক্রিকেটার ও একজন কোচকে পারিশ্রমিক দেয় নি বিপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজি সিলেট সিক্সার্স। একটিমাত্র ফ্র্যাঞ্চাইজির চারজনের পারিশ্রমিকের জন্য বিপিএলের দিকে আঙ্গুল তাক করা উচিত নয় বলে মন্তব্য দায়িত্বশীলদের।

 

বিসিবির পক্ষ থেকে একাধিকবার সিলেট সিক্সার্সককে পারিশ্রমিক পরিশোধ করতে বলা হয়েছে। কিন্তু তাতে কর্ণপাত না করায় এবং ফিকার প্রতিবেদন প্রকাশের পর এবার সিলেট সিক্সার্সকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছে বিসিবি।

 

ফেডারেশন অব ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন (ফিকা) গেল সোমবার তাদের বার্ষিক প্রতিবেদনে উল্লেখ করে, বিশ্বজুড়ে ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টগুলোতে খেলা এক-তৃতীয়াংশেরও বেশি ক্রিকেটার নিজেদের পারিশ্রমিক পান নি কিংবা পেতে দেরি হয়।

 

ফিকার প্রতিবেদনে বিশ্বের ৬টি টুর্নামেন্টের কথা আছে, যেখানে বিপিএলও রয়েছে।

 

বিপিএলের ২০১৮-১৯ মৌসুমে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটসম্যান নিকোলাস পুরান, আফগানিস্তানের গুলবাদিন নাইব, পাকিস্তানের সোহেল তানভীর এবং পাকিস্তানে ওয়াকার ইউনিসের পুরো পারিশ্রমিক পরিশোধ করে নি সিলেট সিক্সার্স। ওয়াকার ইউনিস ওই মৌসুমে সিক্সার্সে কোচ হিসেবে কাজ করেছিলেন।

 

এ চারজন সিলেট সিক্সার্স এবং বিসিবির সাথে যোগাযোগ করেও নিজেদের পুরো টাকা পান নি।

 

ফিকার প্রতিবেদন প্রকাশের পর নড়েচড়ে বসেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে সিলেট সিক্সার্সকে।

 

বিপিএলের গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্যসচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

 

তিনি বলেন, ‘আমরা ফ্র্যাঞ্চাইজিকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছি, যত দ্রুত সম্ভব তাদের বকেয়া পারিশ্রমিক প্রদান করতে।’

 

সিলেট সিক্সার্সে খেলা ওই তিন ক্রিকেটার বিপিএলের প্লেয়ার্স ড্রাফটে ছিলেন না। ফ্র্যাঞ্চাইজিটি বাইরে থেকে তাঁদেরকে দলে টানে। এজন্য তাঁদের পারিশ্রমিক প্রদানের সুযোগ নেই বিসিবির।

 

ইসমাইল হায়দার মল্লিক বলছিলেন, ‘আমাদের এখানে করার আছে সামান্যই। তাদের পারিশ্রমিক প্রদান করার সুযোগ আমাদের নেই। কারণ প্রত্যেককে ড্রাফটের বাইরে থেকে নেওয়া হয়েছে।’

শেয়ার করুন :