সাফ পেছানোয় লাভ দেখছেন বাংলাদেশ গোলরক্ষক সাফ পেছানোয় লাভ দেখছেন বাংলাদেশ গোলরক্ষক – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর প্রতিবেদক :: দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবলের শীর্ষ লড়াই ‘সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ’ পিছিয়ে গেছে মহামারি করোনার কারণে। এই টুর্নামেন্ট পিছিয়ে যাওয়ায় ‘লাভ’ দেখছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা।

 

তিনি বলছেন, যে সময় পেয়েছেন, তাতে সামনে প্রস্তুতিটা ভালো হবে।

 

এ বছর সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ১৩তম আসর বাংলাদেশের আয়োজন করার কথা ছিল। মূলত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী তথা ‘মুজিববর্ষ’ উপলক্ষে এ সিদ্ধান্ত হয়েছিল।

 

টুর্নামেন্টটি হওয়ার কথা ছিল ১৯ থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর সময়ের মধ্যে। কিন্তু করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে আপাতত টুর্নামেন্টটি স্থগিত করার সিদ্ধান্ত হয় গেল জুন মাসের শেষ দিকে। সাফভূক্ত দেশগুলোর এক ভার্চুয়াল সভায় ওই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

 

নতুন করে টুর্নামেন্টটি আগামী বছর করার সিদ্ধান্ত হলেও দিনক্ষণ ঠিক হয় নি। তবে যখনই হোক, আয়োজক হিসেবে থাকবে বাংলাদেশই।

 

বাংলাদেশে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ হবে বলে দারুণ আশাবাদী দলের গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) মাধ্যমে এক ভিডিওবার্তায় নিজের আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

 

বর্তমানে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের গোলরক্ষকের দায়িত্বে থাকা আশরাফুল ইসলাম রানা বলেন, ‘এ বছর সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ হওয়ার কথা ছিল, সেটি কোভিড-১৯ এর কারণে পিছিয়ে সামনের বছরে চলে গিয়েছে। ব্যাক্তিগতভাবে আমি মনে করি, সাফ আমাদের দেশের জন্য বড় একটি টুর্নামেন্ট। যেহেতু এবারের টুর্নামেন্ট আমাদের মাঠে, সেহেতু আমাদের ভালো একটা সুযোগ আছে।”

 

‘আসলে আমাদেরও প্রস্তুতি ঘাটতি আছে। সেক্ষেত্রে আমি মনে করি, এটা আগামী বছর অনুষ্ঠিত হলে আমাদের প্রস্তুতি ভালো থাকবে এবং এটা নিয়ে আমরা অনেক বেশি কাজ করতে পারব। আশা করি ইনশা আল্লাহ, সাফে আমাদের ভালো ফল হবে।-যোগ করেন তিনি।

 

প্রসঙ্গত, সাফের গেল ১২ আসরে মাত্র একবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ। ২০০৩ সালে দেশের মাটিতে আয়োজিত টুর্নামেন্টের শিরোপা উঁচিয়ে ধরেন লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।

 

সর্বশেষ চার আসরেই গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেওয়ার তিক্ত অভিজ্ঞতাও হয়েছে বাংলাদেশের।

শেয়ার করুন :