যে জয়ের জন্য বার্সেলোনার পাঁচ বছরের অপেক্ষা! যে জয়ের জন্য বার্সেলোনার পাঁচ বছরের অপেক্ষা! – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর ডেস্ক :: বার্সেলোনা শেষ কবে সেল্টা ভিগোর মাঠ থেকে জয় নিয়ে ফিরেছিল? বার্সার খেলোয়াড়রাই হয়তো ভুলে গেছেন জয়ের সেই দিনক্ষণ! পাঁচ বছর আগের জয়ের কথা খুব কম জনেরই মনে থাকার কথা।

 

অবশেষে, পাঁচ বছরের অপেক্ষা ফুরিয়েছে বার্সেলোনার। কাল রাতে তাঁরা জয় সেল্টা ভিগোর মাঠ থেকে ৩-০ গোলের দারুণ জয় নিয়ে ফিরেছে।

 

লা লিগার ম্যাচটিতে গোল করেছে আনসু ফাতি ও সের্জি রবার্তো। অপর গোল নিজেদের ভুলে হজম করে সেল্টা।

 

সেল্টা ভিগোর মাঠে বার্সা সর্বশেষ জিতেছিল ২০১৪-১৫ মৌসুমে। এরপর আরও পাঁচবার তাঁদের মাঠে গিয়ে তিনবারই হারতে হয়েছে লিওনেল মেসিদের, অপর দুই ম্যাচ হয়েছিল ড্র।

 

হার আর ড্রয়ের বৃত্ত থেকে অবশেষে বেরিয়ে এলো রোনাল্ড কোম্যানের দল। বৃষ্টির মধ্যেই হয়েছে ম্যাচটি। ফলে স্বাভাবিক ছন্দ ছিল না খেলায়।

 

বার্সা এগিয়ে যায় একাদশ মিনিটে। ব্রাজিলিয়ান তারকা ফিলিপ কৌতিনহোর পাসে ডি-বক্সের মুখ থেকে বাঁ পায়ের টোকায় বল সামনে বাড়ান স্প্যানিশ তরুণ ফরোয়ার্ড আনসু ফাতি। এরপর ডান পায়ের শটে খুঁজে নেন জাল। ঠিক আগের ম্যাচে ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে ৪-০ গোলে জয়ে দুটি গোল করেছিলেন ফাতি।

 

মিনিট চারেক পরে বার্সার রক্ষণকে কাঁপিয়ে দেয় সেল্টা। ডান প্রান্ত থেকে গ্যাব্রিয়েল ভেইগার গোলমুখে থাকা সতীর্থের উদ্দেশ্যে বল বাড়িয়েছিলেন। তবে দারুণ ক্ষিপ্রতায় বল নিয়ন্ত্রণে নেন বার্সা গোলরক্ষখ নেতো।

 

৩৫তম মিনিটে লাল কার্ড দেখেছিলেন জেরার্ড পিকে। দেনিস সুয়ারেজকে পেছন থেকে ফাউল করেন পিকে। তাঁকে লাল কার্ড দেখান রেফারি। তবে বল পাওয়ার ঠিক আগমুহূর্তে সুয়ারেজ অফসাইডে থাকায় রক্ষা পান পিকে।

 

কিন্তু লাল কার্ড থেকে বাঁচতে পারেনি বার্সেলোনা। ফরাসি ডিফেন্ডার ক্লেমোঁ লংলে ৪২তম মিনিটে সেল্টার মিডফিল্ডার এমরে মরকে অহেতুক ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখেন।

 

এর প্রতিবাদ করে হলুদ কার্ড দেখেন জেরার্ড পিকে। বার্সা অধিনায়ক লিওনেল মেসি বেশ কিছুক্ষণ কথা বলেন রেফারির সঙ্গে। তবে রেফারির সিদ্ধান্ত বদলায়নি।

 

দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণে গতি বাড়ায় সেল্টা। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে তাঁরা ফের পিছিয়ে পড়ে। ৫১তম মিনিটে মেসি বল পায়ে কারিকুরিতে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন। তিনি ছোট ডি-বক্সের মুখে থাকা এক সতীর্থের উদ্দেশ্যে বল বাড়াতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সেই বল সেল্টার ডিফেন্ডার লুকাস ওলাসার পায়ে লেগে ঢুকে যায় তাঁদেররই জালে।

 

দুই গোলে এগিয়ে থাকা বার্সা আক্রমণের ঝড় বইয়ে দেয় পরের ১০ মিনিটে। তবে ভাগ্য সহায় না হওয়ায় গোল আর পায়নি তাঁরা।

 

৫৫তম মিনিটে কৌতিনহোর জোরালো শট পোস্টে লেগে ফিরে আসে। ফিরতি বলে পা লাগিয়ে জালে পাঠিয়েছিলেন মেসি। কিন্তু তিনি ছিলেন অফসাইডে। খানিক পরে কৌতিনহোকে গোলবঞ্চিত করেন সেল্টার গোলরক্ষক।

 

৭৩তম মিনিটে গোল পায়নি সেল্টা অল্পের জন্য। নোলিতোর শট ঝাঁপিয়ে পড়ে ঠেকিয়ে দেন বার্সা গোলরক্ষক নেতো। ফিরতি বল পেয়ে মিগুয়েল বায়েসা শট নিয়েছিলেন। তবে তাঁর শট বার্সার এক ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে ক্রসবার ছুঁয়ে বেরিয়ে যায়।

 

ম্যাচের যোগ করা সময়ে মেসির শট ঠেকিয়ে দেন সেল্টার গোলরক্ষক। কিন্তু ফিরতি বলে গোল করেন রাইট-ব্যাক সের্জি রবার্তো।

 

লা লিগায় দুই ম্যাচে দুই জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে বার্সেলোনা। তিন ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে গেটাফে। এরপর আছে ভ্যালেন্সিয়া, রিয়াল মাদ্রিদ ও ভিয়ারিয়াল।

শেয়ার করুন :