ভারতকে এক ইঞ্চি ছাড় নয়: বোর্ডার ভারতকে এক ইঞ্চি ছাড় নয়: বোর্ডার – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর ডেস্ক :: অস্ট্রেলিয়ান মৌসুমের প্রথম টেস্ট সিংহভাগ সময়ই ব্রিজবেনে হয়ে থাকে। অস্ট্রেলিয়ার দুর্গ বলে পরিচিত এ ভেন্যু। কিন্তু এবার মৌসুমের শুরুতে ভারতের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্ট হবে অ্যাডিলেইডে।

 

অস্ট্রেলিয়ায় নতুন বছরের প্রথম টেস্ট জানুয়ারির ২ থেকে ৪ তারিখের মধ্যে শুরু হয় সিডনিতে। কিন্তু ভারতের চাওয়ায় সিডনি টেস্ট দুই দিন পিছিয়ে ৭ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে বলে সূচিতে রেখেছে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট বোর্ড (সিএ)।

 

এ নিয়ে নাখোশ অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি ক্রিকেটার অ্যালান বোর্ডার। নিজেদের চিরায়ত ঐতিহ্য থেকে ভারতের চাপে যাতে সরে আসা ন হয়, সে দাবিই জানিয়েছেন তিনি।

 

অ্যালান বোর্ডার ও ভারতের সুনীল গাভাস্কারের প্রতি সম্মান জানিয়ে অস্ট্রেলিয়া-ভারত টেস্ট সিরিজের নাম ‘বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফি’। আগামী ডিসেম্বরে অস্ট্রেলিয়া সফরে স্বাগতিকদের বিপক্ষে খেলবে ভারত।

 

অস্ট্রেলিয়ার ফক্স স্পোর্টস নিউজে আলোচনায় অ্যালান বোর্ডার আসন্ন এ সিরিজ নিয়ে বিস্তারিত কথা বলেছেন। তিনি নিজেদের ঐতিহ্যের বাইরে যেতে রাজি নন।

 

‘আমার মনে হয় না, এই জায়গাটিতে আলোচনা বা দর-কষাকষির সুযোগ থাকা উচিত। হ্যাঁ, করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক বাস্তবতার কারণে যদি সূচিতে এদিক-সেদিক হয়, তাহলে তা ঠিক আছে। কিন্তু স্রেফ বক্সিং ডে টেস্ট ও বর্ষশুরুর টেস্টের মধ্যে বাড়তি কিছু বিরতির জন্য সূচিতে বদল আনা ফালতু ভাবনা।’

 

টেস্ট ক্রিকেটে ১১ হাজার রান করা প্রথম ব্যাটসম্যান বোর্ডার বলছেন, ‘অনেক বছর ধরেই আমাদের এখানে এটা চলে আসছে। পিঠেপিঠি টেস্ট ম্যাচ? এটা তো চাপ নয়, বরং বড়দিন ও নতুন বছরের সময়টায় আনন্দের উপলক্ষ হিসেবেই নেওয়া হয় এটিকে। ভারত বাড়তি দুই দিন সময় চেয়েছে বলেই এখানে বদল আনা হলে আমার আপত্তি আছে।’

 

মৌসুমের প্রথম টেস্ট অস্ট্রেলিয়া ব্রিজবেনে খেলে থাকে, সেটা স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন বোর্ডার। এবার এখানকার টেস্ট অ্যাডিলেইডে হওয়ার খবরে তিনি বিরক্ত।

 

অস্ট্রেলিয়ার সর্বকালের সেরা ব্যাটসম্যান ও অধিনায়কদের অন্যতম বোর্ডার বলছিলেন, ‘অনেক বছর ধরেই আমাদের প্রথম টেস্ট হয়ে আসছে ব্রিজবেনে। দারুণ এক মাঠ এটি, এখানকার উইকেট সম্পর্কে আমরা ভালো জানি, এখানে ভালো খেলি এবং বরাবরই দুর্দান্ত শুরু পাই এখান থেকে। এখন ভারত এখানে প্রথম ম্যাচ খেলতে চায় না। এটা হওয়া উচিত নয়। আমাদের স্রেফ বলা উচিত, এই তারিখে এই ভেন্যুতে ম্যাচ হবে। খেলা কখন ও কোথায় হবে, এসব নিয়ে আমাদের এক ইঞ্চি ছাড় দেওয়াও উচিত নয়।’

 

ভারত ক্রিকেটে আর্থিকভাবে শক্তিশালী অবস্থানে থাকায় তাঁরা ‘খবরদারি’ করতে চায় বলেও মনে করছেন অ্যালান বোর্ডার, ‘আমার মনে হয়, তারা স্রেফ মনস্তাত্ত্বিক খেলা খেলছে। তারা নিজেদের বিশ্ব ক্রিকেটের শক্তির জায়গা মনে করে এবং আর্থিকভাবে তারা সেটাই। এজন্যই সবকিছুতে নিজেদের মতামত দিতে চায়। কিন্তু ব্যাপারটি যদি উল্টো হতো (অস্ট্রেলিয়া আর্থিকভাবে বেশি শক্তিশালী হতো), আমরা নিশ্চয়ই সূচি নিয়ে কথা বলতে যেতাম না। যে সূচি দেওয়া হতো, আমরা খেলতাম।’

 

বোর্ডার মনে করিয়ে দিচ্ছেন, ‘দরকষাকষি অনেক ক্ষেত্রে হতেই পারে। কিন্তু এই তারিখগুলো আমাদের ঐতিহ্য, সবাই জানে, বর্ষপুঞ্জিতে এগুলো চিরকাল ধরে আছে। এখানে ঠিক থেকে তার পর আলোচনা হতে পারে। আমি অবশ্যই চাইব না এখানে মাথা নত করতে। এগুলো আমাদের ঐতিহ্য, এখানে অটল থাকা উচিত।’

 

অস্ট্রেলিয়া-ভারত সিরিজে পিংক বল টেস্ট

 

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ) অ্যালান বোর্ডারের কথায় মনোযোগ দেয় কী-না, এখন সেটিই দেখার বিষয়।

শেয়ার করুন :