‘বোমা’ ফাটালেন কামরান আকমল! ‘বোমা’ ফাটালেন কামরান আকমল! – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর ডেস্ক :: পাকিস্তানের ক্রিকেটে কামরান আকমল আর তাঁর ভাই উমর আকমলকে ঘিরে বিতর্কের শেষ নেই। কখনো মাঠে ভেতরে কোনো ঘটনায়, কখনোবা মাঠের বাইরের ঘটনায়–তাঁরা থাকেন আলোচনায়, সমালোচনায়।

 

কামরান আকমল ২০১৭ সালে সর্বশেষ পাকিস্তান দলের হয়ে খেলেছেন। এর পর থেকে দলে জায়গা হয় নি তাঁর। অন্যদিকে সম্প্রতি ফিক্সিংকাণ্ডে নিষিদ্ধ হয়েছেন উমর আকমল।

 

কামরান আকমলের পারফরম্যান্স যে একেবারে খারাপ, তা নয়। পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তিনি; ৫৫ ইনিংসে রান ১৫৩৭। পিএসএলে পেশোয়ার জালমির হয়ে খেলা কামরান আকমাল দ্রুততম হাফ সেঞ্চুরি ও উইকেটরক্ষক হিসেবে সবচেয়ে বেশি ৪৪টি ডিসিমিসালের রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন। এছাড়া টুর্নামেন্টে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরির মালিকও তিনি।

 

২০১৮ মৌসুমে ৩৮.৬৩ গড় আর দেড়শ’র বেশি স্ট্রাইক রেটে করেছিলেন ৪২৫ রান। আর ২০১৯ মৌসুমে করেন ৩৫৭ রান। যদিও এবারের মৌসুম খুব বেশি ভালো যায়নি কামরান আকমলের। ৯ ইনিংসে করেছেন ২৫১ রান। এর মধ্যে কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সের বিপক্ষে ৫৫ বলে ১০১ রানের বিধ্বংসী ইনিংসও আছে। খারাপ বলার সুযোগ নেই এই পারফরম্যান্সকে!

 

এমন পারফরম্যান্সের পর কামরান আকমল অন্তত টি-টোয়েন্টিতে সুযোগ পেতে পারতেন জাতীয় দলে, এমনটাই তাঁর দাবি। আর সুযোগ না পাওয়াটাকে তিনি ‘ব্যক্তিগত আক্রোশের শিকার’ বলে অভিহিত করে ‘বোমা’ ফাটিয়েছেন।

 

ক্রিকেট পাকিস্তানের একটি অনুষ্ঠানে এমন জাঁজালো ঝাঁজালো মন্তব্য করেন কামরান আকমল।

 

তিনি বলেন, ‘ঘরোয়া ক্রিকেট আর পিএসএলে গত পাঁচ বছর ধরেই পারফর্ম করে আসছি। কিন্তু পাকিস্তানের হয়ে খেলার সুযোগ দেয়া হয় নি। বিগত সময়গুলোতে কয়েকজন কোচ আছেন, যারা আমাকে পছন্দ করতেন না। এজন্য আমাকে সাইডলাইনে রাখা হয়।’

 

কামরান আকমল উদাহরণ হিসেবে টানলেন অস্ট্রেলিয়ার উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ম্যাথু ওয়েডকে। তিনি বলেন, ‘টেস্ট আর টি-টোয়েন্টি দলে আমাকে না নেয়াটা অযৌক্তিক। কেননা একজন ব্যাটসম্যান হিসেবে আমি অনায়াসেই খেলতে পারি। যদি ম্যাথু ওয়েড ১৮ থেকে ২০ গড় নিয়ে দলে ফিরতে পারে, ৬০-এর কাছাকাছি গড় নিয়েও আমি কেন পারছি না?’

 

উমর আকমলের নিষেধাজ্ঞা নিয়েও ক্ষোভ ঝরালেন কামরান আকমল, ‘পাকিস্তানের ক্রিকেটে মাঠের বাইরের কাণ্ড নতুন কিছু নয়। টিম ম্যানেজম্যান্ট এবং অধিনায়ককে জানতে হবে এমন খেলোয়াড়দের কিভাবে আয়ত্বে রাখা যায়। দেখুন ইনজি ভাই (সাবেক অধিনায়ক ইনজামাম উল হক) কীভাবে শোয়েব (আখতার), আসিফ আর শহিদকে (আফ্রিদি) পরিচালনা করেছেন। যদি উমর আকমলকে সেভাবে চালানো হতো, তবে পরিস্থিতি ভিন্ন হতে পারতো।’

 

কামরান আকমলের এসব বিস্ফোরক মন্তব্যের পর পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)-এর তরফ থেকে মন্তব্য এখনও পাওয়া যায় নি।

শেয়ার করুন :