বিশ্বকাপ বাছাই: হোম ম্যাচে চোখ তপু বর্মণের বিশ্বকাপ বাছাই: হোম ম্যাচে চোখ তপু বর্মণের – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর প্রতিবেদক :: গেল বছর কলকাতায় হয়েছিল ম্যাচটি। সল্টলেকে উপচেপড়া দর্শকের সামনে লড়াইয়ে নেমেছিল বাংলাদেশ-ভারত। কাতার বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের বাছাইপর্বের ম্যাচ ছিল সেটি।

 

সাদ উদ্দিনের গোলে এগিয়ে গিয়েও শেষমুহুর্তে গোল খেয়ে ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র করেন জামাল ভূঁইয়ারা। আগামী ১২ নভেম্বর ঘরের মাটিতে ফের ভারতের বিপক্ষে লড়বে বাংলাদেশ।

 

বাংলাদেশ জাতীয় দলের ডিফেন্ডার তপু বর্মণ বলছেন, আগের ম্যাচে হেরে যাওয়াটা ছিল ‘দুর্ভাগ্য’। কিন্তু আগামী ম্যাচে ‘হোম অ্যাডভান্টেজ’ কাজে লাগিয়ে জয় চান তাঁরা।

 

চোটের কারণে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে বাংলাদেশের হয়ে চারটি ম্যাচের একটিতেও খেলার সুযোগ হয়নি তপু বর্মণের। এখন তিনি ফিট। তাকিয়ে আছেন সামনের লড়াইয়ের দিকে।

 

তপু বর্মণ বলেন, ‘আশা করি আগস্টে আমাদের ক্যাম্প শুরু হবে এবং নিজেদের প্রস্তুত করার জন্য যথেষ্ট সময় পাবো।’

 

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে চার ম্যাচ খেলে তিনটিতে হার সঙ্গী হয়েছে বাংলাদেশের। আর ভারতের বিপক্ষে ওই ম্যাচে ড্র থেকে প্রাপ্তি এক পয়েন্ট। ‘ই’ গ্রুপে তাই তলানিতে আছেন সাদ উদ্দিনরা।

 

সামনে আরো চারটি ম্যাচ বাকি। এর মধ্যে কাতারের বিপক্ষে ম্যাচটি শুধু তাঁদের দেশে গিয়ে খেলবে বাংলাদেশ। বাকি তিনটি ম্যাচই হবে নিজেদের ঘরের মাঠে। ম্যাচগুলো সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। ইতিমধ্যে ৮ অক্টোবর আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটি এ স্টেডিয়ামের হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে গেছে।

 

বাকি দুটি ম্যাচে, আগামী ১২ নভেম্বর ভারতের বিপক্ষে এবং ১৭ নভেম্বর ওমানের বিপক্ষে লড়বে বাংলাদেশ। এ দুটি ম্যাচও হবে ঘরের মাঠে। করোনা পরিস্থিতি যদি স্বাভাবিক হয়, তবে দর্শকভর্তি স্টেডিয়ামে হবে সেই ম্যাচগুলো। স্বাভাবিকভাবেই দর্শকদের সমর্থনে উজ্জীবিত থাকবে বাংলাদেশ।

 

হোম ম্যাচের এই বাড়তি সুবিধার দিকে চোখ রেখে তপু বর্মণ বলছেন, ‘হোম ম্যাচ হওয়ার কারণে আমরা বাড়তি কিছু সুবিধা পাবো। তাজিকিস্তানের মাটিতে আফগানিস্তানের সঙ্গে ভালো খেলেও হেরে গিয়েছিলাম। কিন্তু দলগতভাবে তুলনা করলে ওদের চেয়ে আমরাই এগিয়ে থাকবো। যেহেতু দেশের বাইরের ম্যাচগুলো ভালো খেলেছি, তাই আশা করি হোম ম্যাচেও একটা ইতিবাচক ফল পাবো।’

 

ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ প্রসঙ্গে জাতীয় দলের এই ডিফেন্ডার বলছিলেন, ‘আমরা সেবার জয়ের খুব কাছাকাছি গিয়েও দুর্ভাগ্যবশত হেরে যাই। ওখানে ভারতের বিপক্ষে ভালো খেলাটা এবার আমাদের জন্য ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। যদিও ভারতের সঙ্গে আমাদের কোনো পার্থক্য খুঁজে পাই না। তবে জয়ের ব্যাপারে সমান সম্ভাবনা থাকবে দুই দলের। কিন্তু আমরা হোম ম্যাচের সুবিধাটা কাজে লাগাতে চাই।’

 

ওমানের বিপক্ষে গেল বছর তাঁদের মাটিতে খেলে বাংলাদেশ হার মানে ৪-১ গোলের ব্যবধানে। কিন্তু এবার দেশের মাটিতে খেলা বলে তাঁদের বিপক্ষে ইতিবাচক ফলের চিন্তা করছেন তপু বর্মণ, ‘আমরা জানি ওমান শক্তিশালী প্রতিপক্ষ। বিশ্বকাপ বাছাইয়ের কঠিন ম্যাচটিই খেলেছি ওমানের সঙ্গে। তবে সেবার দেশের বাইরে খেলেছিলাম। এবার আমরা ঘরের মাঠে খেলব। দলগতভাবে সবাই যদি ভালো খেলতে পারি তাহলে একটা ইতিবাচক ফলই হবে।’

শেয়ার করুন :