বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ‘পয়েন্ট চাই’ বাংলাদেশের বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ‘পয়েন্ট চাই’ বাংলাদেশের – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর প্রতিবেদক :: জেমি ডে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের সঙ্গে নতুন চুক্তি করেছেন, সেটা পুরনো খবর। বাফুফে তাঁকে কোচ হিসেবে দুই বছরের জন্য আবার নিয়োগ দিয়েছে। নতুন শুরুর এই সময়ে জেমি ডে বাংলাদেশকে নিয়ে তাঁর পরিকল্পনা জানিয়েছেন। সেই পরিকল্পনায় ২০২২ কাতার বিশ্বকাপ আর ২০২৩ এশিয়ান কাপের বাছাইয়ের পরের চার ম্যাচ থেকে কিছু পয়েন্ট পাওয়ার বিষয়টিই পাচ্ছে বড় প্রাধান্য।

 

জেমি ডে আছেন নিজ দেশ ইংল্যান্ডে। সেখান থেকে আজ বৃহস্পতিবার ভার্চুয়াল কনফারেন্সে নিজের পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন তিনি।

 

মহামারি করোনার কারণে বর্তমানে ফিফার সব ধরনের প্রতিযোগিতার ম্যাচ স্থগিত। গেল মার্চ থেকে এই অবস্থা। আগামী অক্টোবর থেকে ফের খেলা শুরুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফিফা।

 

করোনার বিরতি শেষে ‘নতুন শুরুতে’ বাংলাদেশের বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের বাছাইয়ের পরের ম্যাচ ৮ অক্টোবর, প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান; ম্যাচ হবে ঘরের মাটিতে। এরপর ১৩ অক্টোবর কাতারের বিপক্ষে বিপলুদের ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে দোহায়। এছাড়া বাকি দুটি ম্যাচ ভারত ( ১২ নভেম্বর) ও ওমানের ( ১৭ নভেম্বর) বিপক্ষে দেশের মাটিতেই খেলবে বাংলাদেশ।

 

বাছাইয়ে এখনও জামাল ভুঁইয়ারা খেলেছেন ৪টি ম্যাচ। সেখান থেকে ভারতের কলকাতায় তাঁদের সাথে ড্র করে ১ পয়েন্টই শুধু প্রাপ্তি। বাকি তিন ম্যাচেই হার।

 

সামনের ৪ ম্যাচকে ঘিরে তাই নতুন রণপরিকল্পনা আঁটছেন জেমি ডে, ‘সামনে আমাদের ৪টি ম্যাচ আছে; এর মধ্যে ৩টি হোম ম্যাচ। এখান থেকে কিছু পয়েন্ট পেতে চাই। যদিও জানি, কাজটা মোটেও সহজ নয়। আফগানিস্তান ও ভারত দুটিই কঠিন প্রতিপক্ষ। কিন্তু তাঁদের বিপক্ষে পয়েন্ট পাব না, এই মানসিকতা নিয়ে মাঠে নামা যাবে না। সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো যেন, ওদের বিপক্ষে পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারি। যে অবস্থা তাতে মনে হচ্ছে দর্শকশূন্য মাঠে খেলা হবে; সেক্ষেত্রে হোম অ্যাডভান্টেজ পাওয়া হবে না।’

 

জেমি ডের শঙ্কাই সত্যি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে ফিফা দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে ম্যাচ আয়োজন করতে পারে। সেক্ষেত্রে ঘরের মাঠে ৩টি ম্যাচে দর্শকদের সমর্থন না পাওয়াটা বাংলাদেশের জন্য ক্ষতিই।

 

বাছাইয়ে ভারতের বিপক্ষে সাদউদ্দিনের গোলে এগিয়ে গিয়ে ড্র করতে হয় বাংলাদেশকে। সে ম্যাচ নিয়ে আছে হতাশা।

 

জেমি ডে বলছেন, ‘ভারতের বিপক্ষে আমাদের ভালো সুযোগ ছিল। সামনের ম্যাচগুলোতে যদি ইতিবাচক ভাবনা নিয়ে মাঠে নামি, তাহলে কঠিন হলেও জয় পাওয়া সম্ভব। নেতিবাচক চিন্তা করে নামলে তা হবে প্রতিপক্ষের জন্য ভালো।’

 

এমন অভিজ্ঞতা আগে হয়নি রোনালদোর!

সিটির কাছে উড়ে গেল আর্সেনাল

 

বাফুফে জানিয়েছে, ৪৪ জন ফুটবলার নিয়ে আগস্টের শুরুতে ক্যাম্প করা হবে। ক্যাম্প শুরুর আগে সবার করোনা পরীক্ষা করা হবে। অসুস্থ কাউকে রাখা হবে না ক্যাম্পে। যারা সুস্থ থাকবেন, তাদেরকে রাখা হবে ১৪ দিনের আইসোলেশনে। এরপরই শুরু হবে প্রস্তুতি। কোচ জেমি ডেও সেদিকে চোখ করে আছেন। ইংল্যান্ডে থাকলেও দল নিয়ে আছে তাঁর ভাবনা, ‘ছেলেরা ঘরে বসে ফিটনেস নিয়ে কাজ করছে। তাদের সঙ্গে সবসময় যোগাযোগ রাখছি। নির্দেশনা দিচ্ছি। আসলে যে কোনো প্রাক মৌসুম হয় চার থেকে ছয় সপ্তাহের। কেননা, দীর্ঘায়িত হলে অনেক সময় নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। সেরা সুযোগ-সুবিধা পেলে ছয় সপ্তাহ যথেষ্ট।’

 

জেমি ডে যখন বাংলাদেশে আসবেন, তখন তাঁকেও আইসোলেশনের মধ্য দিয়ে যেতে হবে, এমনটাই জানিয়েছে বাফুফে।

 

এদিকে, বাংলাদেশের কোচ হিসেবে দুই মেয়াদে দুই বছর কাটিয়েছেন জেমি। তিনি নিজের প্রাপ্তির খাতাকেই বেশি ভারি মানছেন।

 

মূল্যায়ন করেছেন ডে। তুলনামূলকভাবে প্রাপ্তিই বেশি বলে মনে করছেন এই ইংলিশ কোচ। এশিয়ান গেমসে কাতারকে হারানো, বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠা, ভারতের সঙ্গে ড্রকে তিনি প্রাপ্তি বলছেন। আর সর্বশেষ কাঠমন্ডু এসএ গেমসের ফাইনালে উঠতে না পারাটা তাঁর কাছে হতাশা।

 

স্পোর্টসট্যুর২৪ডটকম/আরআই-কে

শেয়ার করুন :