বিশ্বকাপের ‘পাতানো ফাইনাল’ তদন্তে শ্রীলঙ্কা বিশ্বকাপের ‘পাতানো ফাইনাল’ তদন্তে শ্রীলঙ্কা – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর ডেস্ক :: সাবেক ক্রীড়ামন্ত্রী মহিন্দানন্দ আলুথগামাগে যে অভিযোগ তুলেছেন, সেটিকে বেশ গুরুত্বের সঙ্গেই নিয়েছে শ্রীলঙ্কা সরকার। আর সে জন্যই ২০১১ ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনাল ‘পাতানো’ ছিল না কিনা, এ নিয়ে শুরু হয়েছে তদন্ত।

 

শ্রীলঙ্কান পুলিশের একটি বিশেষ তদন্ত ইউনিট ৯ বছর আগের সেই ভারত-শ্রীলঙ্কা ফাইনালকে ঘিরে তদন্ত করছে।

 

তদন্তের অংশ হিসেবে ১৯৯৬ বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার ফাইনাল জয়ের নায়ক অরবিন্দ ডি সিলভাকে ডেকেছে পুলিশ। মঙ্গলবার তাঁর বক্তব্য নেওয়া হয়েছে।

 

চলতি মাসের শুরুর দিকে শ্রীলঙ্কার সাবেক ক্রীড়ামন্ত্রী মহিন্দানন্দ আলুথগামাগে অভিযোগ তুলেন, ২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনাল পাতানো ছিল। ওই বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কা ফাইনাল ‘বিক্রি’ করে দিয়েছিল ভারতের কাছে।

 

তাঁর এমন অভিযোগে তোলপাড় শুরু হয় ক্রিকেট দুনিয়ায়। বিশেষ করে লঙ্কান ক্রিকেটে ঝড় বয়ে যায়। ২০১১ বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক কুমার সাঙ্গাকারা ও তারকা ব্যাটসম্যান মাহেলা জয়াবর্ধনে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে সাবেক ক্রীড়ামন্ত্রীর কাছে প্রমাণ দাবি করেন।

 

সাবেক ক্রীড়ামন্ত্রীর অভিযোগের প্রসঙ্গে অরবিন্দ ডি সিলভা বলেন, ‘এটা ভয়ঙ্কর অভিযোগ। আমি চুপ করে থাকবো না। তাঁর (মহিন্দানন্দ) উচিত প্রমাণ দেওয়া। যদি তাঁর কাছে প্রমাণ থাকে, তবে কেন ৯ বছর চুপ করে ছিলেন? এভাবে মিথ্যা বলে পার পেতে দেওয়া উচিত নয়। আমি এই অভিযোগ তদন্তের জন্য আইসিসি, শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড ও ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি।’

 

২০১১ সালে শ্রীলঙ্কার প্রধান নির্বাচক ছিলেন অরবিন্দ ডি সিলভা। এজন্যই তদন্তের শুরুতে তাঁর বক্তব্য নিয়েছে পুলিশ।

 

২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনালে প্রথম ব্যাট করেন সাঙ্গাকারা-জয়াবর্ধনেরা। তাঁরা তুলেন ২৭৪ রান। জবাব দিতে নেমে ভারত ৬ উইকেট আর ১০ বল হাতে রেখে শিরোপা উল্লাসে মাতে। সেটি ছিল ভারতীয় গ্রেট শচীন টেন্ডুলকারের প্রথম বিশ্বকাপ জয়।

 

ওই বিশ্বকাপের ফাইনালকে ঘিরে আরো একবার অবশ্য বিতর্ক তৈরি করেছিলেন ১৯৯৬ বিশ্বকাপজয়ী শ্রীলঙ্কান অধিনায়ক অর্জুনা রানাতুঙ্গাও । তিনিও ওই ফাইনাল তদন্তের দাবি জানিয়েছিলেন। ওই সময়ে লঙ্কান পুলিশ তদন্ত করে কিছু পায়নি।

শেয়ার করুন :