বাদল রায়ের চোখে জল, মুখে আকুতি বাদল রায়ের চোখে জল, মুখে আকুতি – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর প্রতিবেদক :: বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) নির্বাচনে সবচেয়ে আলোচিত পদ স্বাভাবিকভাবেই সভাপতি। এ পদকে ঘিরে নির্বাচনি লড়াই জমে ওঠার আভাস মিলেছিল তখন, যখন বাদল রায় এ পদে নির্বাচন করতে মনোনয়নপত্র জমা দেন। কাজী মো. সালাউদ্দিনের বিপরীতে বাদল রায়কে অনেকেই ‘যোগ্য প্রার্থী’ বলে মনে করেছিলেন।

 

কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন মোহামেডানের সাবেক এই তারকা ফুটবলার। অসুস্থতার কারণে তিনি এবার নির্বাচন করবেন না বলে জানিয়ে দেন। বাদল রায়ের পক্ষে তাঁর স্ত্রী মাধুরী রায় মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের চিঠি জমা দেন বাফুফেতে। কিন্তু মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের সময় পেরিয়ে যাওয়ায় সে চিঠি গৃহিত হয়নি। ফলে নির্বাচনি ব্যালটে বাদল রায়ের নাম থাকছে।

 

এ বিষয়টির সুযোগ নিয়ে বাদল রায়ের শুভাকাঙ্ক্ষী ও সমর্থকরা তাঁকে ভোট দিতে প্রচারণা চালাচ্ছিলেন।

 

বাধ্য হয়ে নির্বাচন থেকে সরে যাওয়া প্রসঙ্গে আজ শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে কথা বলেছেন বাফুফের গেল কমিটির সহ-সভাপতি বাদল রায়। এ সময় তাঁর চোখে ছিল নির্বাচন করতে না পারায় আক্ষেপের জল। আর মুখে ছিল নির্বাচনের কাউন্সিলরদের (ভোটার) প্রতি আকুতি, তাঁরা যেন ‘চিন্তাভাবনা করে’ ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।

 

মাস ছয়েক আগে মোহামেডানের কার্যালয়ে বসে নির্বাচনে সভাপতি পদে লড়ার কথা বলেছিলেন বাদল রায়। সেই মোহামেডানে বসেই আজ আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচন না করার কথা জানালেন তিনি। তাঁর পাশে স্ত্রী মাধুরী রায় ছিলেন।

 

২০০৮ সাল থেকে টানা ১২ বছর বাফুফের সহ-সভাপতি পদে থাকা বাদল রায় বলছিলেন,‘ফুটবল থেকে আমাকে সরে যেতে হচ্ছে, তাতে আমি খুবই কষ্ট পাচ্ছি। ফুটবলের জন্য কাজ করতেই সভাপতি পদে নির্বাচন করতে চেয়েছিলাম। অনেক কষ্ট ও দুঃখ নিয়ে আজ আপনাদের ডেকেছি। আমার অনেক কষ্ট লাগছে যে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াচ্ছি।’

 

‘‘আমার শরীরের ওপর দিয়ে অনেক চাপ যাচ্ছে। করোনাভাইরাস থেকে সেরে উঠলেও এখনও দুর্বলতা কাটেনি। তো কীভাবে আমি নির্বাচনের ক্যাম্পিং করবো! আমার মেয়ে ও স্ত্রী সবাই বললো-‘ইলেকশন করার দরকার নেই, তোমার ভালো থাকার দরকার। তুমি বেঁচে থাকো, আমাদের জন্য বেঁচে থাকো’। তারপর আমি ভোট না করার সিদ্ধান্ত নিলাম’’

 

বাফুফে নির্বাচন: সিলেট থেকে প্রচারণায় সমন্বয় পরিষদ

বাফুফে নির্বাচন: প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নতুন মোড়

বাফুফে নির্বাচন: কেন সরে গেলেন বাদল রায়?

আমাকে নিয়ে আলাপ হয়, আমি জনপ্রিয়: কাজী সালাউদ্দিন

 

অনেকেই মনে করেন, বাদল রায়ের সরে যাওয়ার পেছনে ‘চাপ ছিল’। কিন্তু ডাকসুর সাবেক এই ক্রীড়া সম্পাদক বলছেন, কোনো ব্যক্তি বা বিশেষ মহলের চাপে তিনি সরে যান নি।

 

‘অনেকে মনে করছেন আমার ওপর চাপ আছে। আসলে কোনো চাপ নয়। নিজের কাছেই আমার চাপ। আমি তৃণমূলের সংগঠকদের নিয়ে বেশি ভাবি। তারা খুব অসহায়। নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার কারণে তাদের কাছে আমি ক্ষমাপ্রার্থী।’

 

বাফুফে নির্বাচনের কাউন্সিলরদের প্রতি বাদল রায়ের আকুতি, ‘আমি কাউন্সিলরদের অনুরোধ করবো, আপনারা চিন্তাভাবনা করে ভোট দেবেন। আমি চাই ফুটবল ফেডারেশনে শক্তিশালী কমিটি আসুক। এমন কাউকে ভোট দিয়েন না যারা ফুটবলের জন্য কাজ করবে না।’

 

আগামী ৩ অক্টোবর বাফুফে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে সভাপতি পদে কাজী মো. সালাউদ্দিন ও শফিকুল ইসলাম মানিক প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সবমিলিয়ে ২১টি পদে প্রার্থী আছেন ৪৭ জন।

শেয়ার করুন :