বাংলাদেশ ফুটবলের নতুন মৌসুম ডিসেম্বরে বাংলাদেশ ফুটবলের নতুন মৌসুম ডিসেম্বরে – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর প্রতিবেদক :: দীর্ঘ বিরতি শেষে আগামী ডিসেম্বরে শুরু হবে বাংলাদেশের ঘরোয়া ফুটবলের নতুন মৌসুম। ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে মাঠে গড়াবে ফেডারেশন কাপ। এর আগে নভেম্বরে হবে খেলোয়াড় রেজিস্ট্রেশন।

 

এবার বিদেশি খেলোয়াড় কোটায় পরিবর্তন এসেছে সামান্য। গেল বার ৫ বিদেশি ফুটবলারকে রেজিস্ট্রেশন করিয়ে ৪ জনকে মাঠে নামানোর সুযোগ ছিল। এবার ৪ জনকে রেজিস্ট্রেশন করিয়ে সবাইকে ম্যাচে খেলানো যাবে।

 

এর আগে ক্লাবগুলোর পক্ষ থেকে বিদেশি ফুটবলার ছাড়া নতুন মৌসুম আয়োজনের প্রস্তাবনা এসেছিল। কিন্তু সেই প্রস্তাবনা থেকে সরে গেছে ক্লাবগুলো। এখন তাদের দাবি, বিদেশি ফুটবলারও থাকুক।

 

দাবিতে একমত হয়ে সায় দিয়েছে বাফুফের পেশাদার ফুটবল লিগ কমিটিও। আজ বৃহস্পতিবার লিগ কমিটির সভায় নতুন মৌসুম শুরু ও বিদেশি কোটার বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।

 

সভা শেষে পেশাদার লিগ কমিটির চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম মুর্শেদী জানান, ফেডারেশন কাপ দিয়ে মাঠে গড়াবে ফুটবলের নতুন মৌসুম। বিদেশি খেলোয়াড়দের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ৩ অক্টোবর নির্বাহী কমিটির সভায় হতে পারে।

 

তিনি বলেন, ‘বিদেশি খেলোয়াড় ইস্যুতে ক্লাবগুলোর লিখিত মতামত আমরা পেয়েছি। ১৩টি ক্লাবের মধ্যে সিংহভাগ ক্লাব মতামত দিয়েছে বিদেশি রাখার ব্যাপারে। দুটি ক্লাব মতামত দেয়নি। একটি ক্লাব আজকের মিটিংয়ে এসে মতামত দিয়েছে।’

 

‘গেল বার বাইলজে ছিল পাঁচজন রেজিস্ট্রেশনের; তার মধ্যে চারজন খেলতে পারবে। এবার সিদ্ধান্ত হয়েছে চারজন রেজিস্ট্রেশনের এবং প্রতি ম্যাচে চারজনকেই খেলার সুযোগ দেওয়ার।’

 

চার বিদেশির মধ্যে বাধ্যতামূলকভাবে রাখতে হবে এশিয়ার একজনকে। কোনো ক্লাব এশিয়ার কোনো ফুটবলারকে দলে না টানলে ম্যাচ তাদেরকে একজন বিদেশি কম নিয়েই খেলতে হবে।

 

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে ফুটবলের ২০১৯-২০ মৌসুম বাতিল হয়ে যায়। ফলে এবার ক্লাবগুলো স্থানীয় খেলোয়াড়রা পুরোনো ক্লাবেই থাকছেন। তবে কোনো খেলোয়াড় সমঝোতার মাধ্যমে এক ক্লাব ছেড়ে অন্য ক্লাবে যেতে পারবেন।

 

তবে বিদেশি খেলোয়াড়রা চাইলে দলবদল করতে পারবেন নিজেদের ইচ্ছাতেই। বিদেশিদের জন্য রেজিস্ট্রেশনের সময় ৪ সপ্তাহ রাখা হয়েছে। স্থানীয় খেলোয়াড়দের বেলায় এ সময় ৩ সপ্তাহ।

 

নতুন মৌসুমে লিগের সময়সীমা কমিয়ে আনতে ভেন্যুও কম হবে। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম ছাড়া ময়মনসিংহ ও কুমিল্লায় খেলা হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। ভেন্যু যদি চারটি রাখা হয়, তবে যুক্ত হবে পারে গোপালগঞ্জ।

 

এদিকে, ক্লাবগুলো খেলোয়াড়দের বকেয়ার পুরোটাই পরিশোধ করতে সম্মত হয়েছে। তবে নতুন মৌসুমে আগের মৌসুমের চুক্তির অঙ্কের ২৫ শতাংশ পারিশ্রমিক পাবেন খেলোয়াড়রা।

শেয়ার করুন :