বর্ণবাদ: মাখায়া এনটিনির বেদনাদায়ক অভিজ্ঞতা বর্ণবাদ: মাখায়া এনটিনির বেদনাদায়ক অভিজ্ঞতা – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর ডেস্ক :: দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটে বর্ণবাদের উপস্থিতি দীর্ঘদিনের। সাদা-কালোর ভেদাভেদ চলে আসছে অনেক আগে থেকে। জাতীয় দলের হয়ে কৃষ্ণাঙ্গ ও শ্বেতাঙ্গ ক্রিকেটাররা একসঙ্গে প্রতিনিধিত্ব করলেও বিভেদ স্পষ্ট হয়ে ওঠে প্রায়ই।

 

এই অবস্থায় ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ ক্যাম্পেনের সমর্থনে এগিয়ে এসেছেন বেশ কিছু প্রোটিয়া ক্রিকেটার। বর্ণবাদের প্রসঙ্গ উত্থাপিত হতে দক্ষিণ আফ্রিকার সর্বকালের অন্যতম সেরা পেসার মাখায়া এনটিনি নিজের বেদনাদায়ক অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন। তিনি বলছেন, জাতীয় দলের সতীর্থদের সঙ্গে দীর্ঘসময় একই সাথে কাটালেও কীভাবে তাঁকে কার্যত সারা জীবন একাকীত্বে ভুগতে হয়েছে।

 

এনটিনি বলেন, ‘আমি চিরকাল একাকীত্বে ভুগেছি। কেউ কখনও ডিনারে যাওয়ার জন্য আমার দরজায় টোকা দেয় নি। সতীর্থরা আমার সামনেই পরিকল্পনা করতো, অথচ আমাকে সেই পরিকল্পনায় রাখা হতো না! যখন সকালের নাশতার টেবিলের দিকে এগিয়ে যেতাম, কেউই আমার পাশে এসে বসতো না।’

 

তিনি বলছেন, নিজের একাকীত্ব লুকাতে টিম বাস এড়িয়ে চলতেন, স্টেডিয়ামে যেতেন একা। কারণ, কখনও তিনি টিম বাসের পিছনে গিয়ে বসলে, বাকিরা সামনের সিটে এগিয়ে যেতেন!

 

‘আমরা একই জার্সি পরে মাঠে নামতাম। একই জাতীয় সঙ্গীত গাইতাম। তা সত্ত্বেও দলের মধ্যে আমি ছিলাম একা। দলের জয় সবসময়ই আনন্দের। তবে হারলে সবার আগে দোষ পড়ত আমার ঘাড়ে। আমি কেন টিম বাস এড়িয়ে চলতাম, কেউ কখনও জানতে চায় নি। আসলে আমি একাকীত্বের অনুভূতি থেকে পালিয়ে বাঁচতে চাইতাম। একাকীত্বের সঙ্গে আপোষ করে নিয়েছিলাম।’

 

এনটিনির কথায় দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটের বর্ণবাদের করুণ চিত্রই যেন ফের বেরিয়ে এলো।

শেয়ার করুন :