ফেরাটা জয় দিয়ে রাঙাতে চান বাংলাদেশ কোচ ফেরাটা জয় দিয়ে রাঙাতে চান বাংলাদেশ কোচ – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর প্রতিবেদক :: সেই জানুয়ারির পর খেলায় নেই বাংলাদেশ জাতীয় দল। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে বুরুন্ডির বিপক্ষে ম্যাচের পর আর মাঠে নামার সুযোগ হয়নি জামাল ভুঁইয়াদের।

 

নামার কথা ছিল অবশ্য। কিন্তু মহামারির কারণে বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের যৌথ বাছাই পিছিয়ে যাওয়ায় কিছুই করার ছিল না বাংলাদেশের।

 

ফুটবলহীন দীর্ঘ খরা কাটাতে প্রীতি ম্যাচ খেলার উদ্যোগ নেয় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। আমন্ত্রণ জানানো হয় শ্রীলঙ্কা ও নেপালকে। সাড়া দেয় নেপাল।

 

আগামী মাসের ১৩ ও ১৭ তারিখ ঢাকায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে নেপালের বিপক্ষে দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলবেন সাদউদ্দিনরা। নেপালের বিপক্ষে ম্যাচকে সামনে রেখে আজ ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে বাফুফে। যেখানে বাফুফে কর্মকর্তারা ছাড়াও ইংল্যান্ড থেকে যুক্ত হন জাতীয় দলের কোচ জেমি ডে।

 

করোনাকালের দীর্ঘ বিরতি কাটিয়ে ফুটবলে ফেরাটা জয় দিয়ে রাঙাতে চান বলে মন্তব্য করেন এই ইংলিশ কোচ। একইসাথে সামনের বছরের প্রস্তুতিও এখন থেকেই নিতে চান তিনি।

 

নেপালের বিপক্ষে ম্যাচের জন্য ৩৬ সদস্যের প্রাথমিক দল ঘোষণা করা হয়েছে। এ দলের আবাসিক ক্যাম্প শুরু হবে আগামী শুক্রবার থেকে। তবে শুরুতেই জেমি ডেকে পাচ্ছে না বাংলাদেশ। তিনি ঢাকায় ফিরবেন ২৯ অক্টোবর। এরপর যোগ দেবেন দলের সাথে। এর আগে স্থানীয় কোচরাই তত্ত্বাবধান করবেন সবকিছু।

 

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ডেনমার্কে থাকা জাতীয় দলের অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়াও ২৯ অক্টোবর ফিরতে পারেন।

 

জেমি ডে বলছেন, দীর্ঘদিন পর ফুটবলে ফেরাটা সহজ হবে না। ২০ দিনের প্রস্তুতিতে দলকে সেরা অবস্থানে নিয়ে আসার পরিকল্পনা করছেন তিনি।

 

‘ফিটনেসের দিক থেকে নেপাল ও বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা একই অবস্থায় থাকবে। কেননা, দুই দল প্রস্তুতির জন্য একই সময় পাচ্ছে। এই অল্প সময়ের মধ্যে যারা সেরা প্রস্তুতি নিবে এবং ইনজুরি মুক্ত থাকবে, এই ২০ দিনের মধ্যে যারা সেরা দল দাঁড় করাতে পারবে, তারাই ফল পাবে। সব কোচই জিততে চাই। তবে এটা শুধু জয়ের ব্যাপার নয়, খেলার জন্য প্রস্তুত হওয়ার বিষয়ও।’

 

‘আমরা ছেলেদেরকে সাত মাস পর খেলতে নামাব। কিছু খেলোয়াড় প্রস্তুত থাকবে না। কারো তিন থেকে পাঁচ ম্যাচ লাগবে আগের পারফরম্যান্সের পর্যায়ে পৌঁছাতে। আমার কাজ হচ্ছে এই ২০ দিনের মধ্যে দলকে সম্ভাব্য সেরা অবস্থায় নিয়ে আসার।’

 

জয় দিয়ে ফিরতে চাওয়া জেমি ডে গুরুত্ব দিচ্ছেন খেলায় ফেরার বিষয়টিকেও।

 

‘অনেক দিন বিরতির পর বাংলাদেশে ফুটবল ফিরতে চাইছে। অবশ্যই জয় দিয়ে ফিরতে চাইব। তবে জয়টায় সবকিছু নয়। ফুটবলের ফেরাটাও গুরুত্ব আছে।’

 

‘সামনের অনেক ম্যাচ ও প্রতিযোগিতা থাকবে; খুবই ব্যস্ত বছরের জন্য প্রস্তুতি শুরুর জন্য এটা ভালো সময়।’

 

নেপাল জাতীয় দলে ৫ বা ৭ নভেম্বর ঢাকায় পৌঁছাবে। তাঁদের কোয়ারেন্টিনের বিষয় নিয়ে ২৫ অক্টোবর আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় সিদ্ধান্ত হতে পারে।

 

ম্যাচের আগে বাংলাদেশ দল বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে এবং নেপাল দল শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব মাঠে অনুশীলন করবে। তবে উবয় দলের জন্যই প্রস্তুত রাখা হয়েছে কমলাপুর শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামও।

শেয়ার করুন :