ফুল নয়, ট্রফি দাও, খুশি হবো: কাজী সালাউদ্দিন ফুল নয়, ট্রফি দাও, খুশি হবো: কাজী সালাউদ্দিন – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর প্রতিবেদক :: গেল ৩ অক্টোবর বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) নির্বাচন সম্পন্ন হয়। নির্বাচনে টানা চতুর্থবারের মতো সভাপতি হন কাজী মো. সালাউদ্দিন।

 

সাবেক এই তারকা ফুটবলার নির্বাচিত হওয়ার পর আজ মঙ্গলবার বিভিন্ন ক্লাবের ফুটবলাররা ফুল নিয়ে শুভেচ্ছা জানাতে যান কাজী সালাউদ্দিনকে। সাথে নিজেদের কিছু দাবির বিষয়ও ছিল। সালাউদ্দিন খেলোয়াড়দের দাবি মেনে নেওয়ার নিশ্চয়তা দিয়েছেন। একইসাথে খেলোয়াড়দের উদ্দেশ্যে তিনি বলেছেন, ফুল নয়, তিনি ট্রফি চান। তাতে তিনি খুশি হবেন।

 

নির্বাচনের আগে ২০২০-২১ মৌসুমে খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক নিয়ে বাফুফে একটি সিদ্ধান্ত নেয়। খেলোয়াড়দের দাবি ছিল, করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে আগের মৌসুমের অর্ধেক তথা ৫০ ভাগ পারিশ্রমিক যেন আগামী মৌসুমে তাঁরা পান। কিন্তু ক্লাবগুলোর তরফে ২৫ শতাংশ পারিশ্রমিক দেওয়ার প্রস্তাব এসেছিল। বাফুফে সেই প্রস্তাব মেনে নেয়। এতে উপেক্ষিত হয় খেলোয়াড়দের দাবি।

 

নির্বাচনের পর আজ ফের বাফুফের দ্বারস্থ হয়েছেন খেলোয়াড়রা। ৩০ জনের বেশি ফুটবলার ফুল নিয়ে যান বাফুফেতে। তাঁরা কাজী সালাউদ্দিনের কাছে দাবি জানান, যেন তাঁদের পারিশ্রমিক ৫০ শতাংশ দেওয়া হয়। এছাড়া গেল মৌসুমের বকেয়াসহ সবমিলিয়ে ৬টি দাবি লিখিতভাবে জানান তাঁরা।

 

সালাউদ্দিন ৪০ শতাংশ যাতে খেলোয়াড়রা পান, সেই নিশ্চয়তা দিয়েছেন। এমনটাই জানিয়েছেন প্রিমিয়ার লিগের দল শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা।

 

তিনি বলছিলেন, ‘আমাদের খেলোয়াড়দের দাবি ছিল, নতুন মৌসুমের পারিশ্রমিক যেন সর্বনিম্ন ৫০ শতাংশ হয়। কিন্তু লিগ কমিটি থেকে সর্বশেষ সিদ্ধান্ত দেওয়া হয় যে ২৫ শতাংশ দেওয়া হবে। এ সিদ্ধান্ত নিয়ে আমরা খেলোয়াড়রা খুবই হতাশ ছিলাম। এ কারণে আজ সভাপতির সঙ্গে আবারও বসলাম।’

 

‘এর আগে সভাপতির সঙ্গে কথা হয়েছিল। তিনি বলেছিলেন, ক্লাবগুলোর সঙ্গে কথা বলে ৪০ শতাংশ করে দিবেন। আজকে সভাপতি ৪০ শতাংশ করে দেওয়ার নিশ্চয়তা দিয়েছেন। ২০১৯-২০ মৌসুমের যে চুক্তিটা ছিল, সে অনুযায়ী ৪০ শতাংশ করে দিবেন। সালাউদ্দিন ভাই যেহেতু সভাপতি, আমরা খেলোয়াড়রা তার সম্মানার্থে এই সিদ্ধান্তে সম্মত হয়েছি এবং এতে আমরা খুশি।’

 

তবে গেল মৌসুমে যেসব সম্ভাবনাময় তরুণ ফুটবলার নজর কেড়েছিলেন, তাদেরকে এই প্রস্তাবনার বাইরে রাখার কথা বলেছেন জাতীয় দলের গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা। কারণ, নতুন মৌসুমে তাদের চাহিদা থাকবে বেশি। স্বভাবতই পারিশ্রমিকও বেশি হবে।

 

‘নতুনদের মধ্যে সম্ভাবনাময় যারা, পরের মৌসুমে তাদের চাহিদা থাকবে বেশি। এ কারণে আমাদের প্রস্তাবনা ছিল, সম্ভাবনাময়দের যেন ওই পারসেন্টেজের আওতায় না রাখা হয়।’

 

বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক ফুটবলে সাফল্য পাচ্ছে খুবই কম। সাফ ফুটবলে গেল চার আসরে গ্রুপ থেকেই বিদায় নিতে হয়েছে লাল-সবুজের জার্সিধারীদের।

 

আজ খেলোয়াড়রা যখন বাফুফে সভাপতির সঙ্গে দেখা করলেন, তখন তিনি ট্রফি এনে দিতে আহবান জানান।

 

রানা বলছিলেন, ‘আমরা খেলোয়াড়রা যখন তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানালাম, তখন তিনি বললেন, তোমরা আমাকে ফুল না, যদি একটা ট্রফি দাও আমি এর থেকে বেশি খুশি হব। উনার সামনের যে সময় আছে, উনি কাজগুলো অনেক এগিয়ে নিতে চাইছেন। অনেক শক্তভাবে পরিচালনা করতে চাইছেন।’

 

‘উনি আরও অনেক কথা বলেছেন, ফুটবলের উন্নয়নে আরও যত কঠোর হতে হয়, উনি সব ধরনের কাজই করবেন। বলেছেন, শুধু তোমরা আমাদেরকে একটা ট্রফি এনে দাও।’

শেয়ার করুন :