‘নেইমার হওয়ার’ ইচ্ছা নেই রদ্রিগোর ‘নেইমার হওয়ার’ ইচ্ছা নেই রদ্রিগোর – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর ডেস্ক :: তাঁর প্রতিভার দুর্দান্ত ঝলক দেখে সান্তোস থেকে তড়িগড়ি করে উড়িয়ে আনে রিয়াল মাদ্রিদ। অথচ তখনও সান্তোসে নিয়মিত খেলছিলেন না রদ্রিগো!

 

প্রতিভার বিচ্ছুরণ দেখে ব্রাজিলের ‘রীতি’ অনুসারে রদ্রিগোকে পূর্বসূরীদের সঙ্গে তুলনা করা শুরু হয়। অনেকেই তাঁকে ‘নতুন নেইমার’ বলতে শুরু করেন। কেউ কেউ ‘নতুন রবিনহো’ বলেও আখ্যা দেন।

 

কিন্তু রদ্রিগো নিজে ‘নেইমার হতে চা না’। ‘রবিনহো হওয়ার’ ইচ্ছাও তাঁর নেই। তিনি নিজের গল্পটা লিখতে চান নিজের মতো করে।

 

এক সাক্ষাৎকারে রদ্রিগো বলেছেন,‘আমি যখন সান্তোসের হয়ে আমার ক্যারিয়ার শুরু করি, প্রথম থেকেই তাঁরা আমাকে হয় নেইমার, না হয় রবিনহোর সঙ্গে তুলনা করত। সব সময় ওই চাপটা আমার ওপর ছিলই। আমি সব সময়েই বলে এসেছি, নতুন নেইমার হওয়ার কোনো ইচ্ছেই নেই আমার। আমি আমার নিজের গল্পটা লিখতে চাই।’

 

সান্তোসে খেলতে শুরুর পর থেকেই নেইমার ও রবিনহোর ফুটবল প্রতিভার কথা ছড়িয়ে পড়ে সর্বত্র। রবিনহোকে টেনে নেয় রিয়াল মাদ্রিদ। লুইস ফিগোর বিখ্যাত দশ নম্বর জার্সি গায়ে চাপানোর সুযোগ পান তিনি। নেইমারকে খুঁজে নেয় বার্সেলোনা।

 

রদ্রিগোও সান্তোসের হয়ে খেলে বিশ্ব মঞ্চে আবির্ভূত হয়েছেন। ১২ বছর বয়সেই তিনি হয়েছেন ক্রীড়া সামগ্রী প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান নাইকির শুভেচ্ছাদূত। নাইকির শুভেচ্ছাদূত হওয়া সর্বকনিষ্ঠ ক্রীড়াবিদ রদ্রিগো।

 

সাড়ে চার কোটি ইউরোতে রিয়ালে আসা রদ্রিগো সবশেষ চ্যাম্পিয়নস লিগে দ্বিতীয় সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে গ্যালাতেসারাইয়ের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করে। নেইমার ও রবিনহোর মতো বিশ্ব ফুটবল মাতানোর সব গুণই আছে তাঁর।

 

কিন্তু রদ্রিগো এসব নিয়ে চিন্তা করে নিজের ওপর চাপ বাড়াতে চান না, ‘নেইমার আর রবিনহো, দুজনই সান্তোসের কিংবদন্তি, তাঁরা অনেক জায়গায় খেলেছেন। আমি মাত্রই আমার ক্যারিয়ার শুরু করেছি। আর আমার কাছে মনে হয়, নেইমার বিশ্বে শুধু একজনই আছে। তবে আমি শুধুই রদ্রিগো হতে চাই।’

 

ব্রাজিলের জার্সি গায়েও তিন ম্যাচ খেলেছেন রদ্রিদোগ। জাতীয় দলে নিয়মিত হতে চান তিনি।

 

‘আমরা সবাই জানি আমার জায়গায় ব্রাজিল দলে অনেক খেলোয়াড় আছে। আমাকে তাই নিজের মান বজায় রাখতে হবে। যখন আমার সামনে খেলার সুযোগ আসবে, তখনই ভালো খেলতে হবে। তিতে যখনই আমাকে অনুশীলনে ডেকে যা যা করতে বলবেন, তাই করতে হবে। নিজের কাজ ঠিকঠাক মতো করতে পারলেই জাতীয় দলে নিয়মিত ডাক পাবো।’

শেয়ার করুন :