নির্বাচকদের হাতে ৬৪ ক্রিকেটারের নাম নির্বাচকদের হাতে ৬৪ ক্রিকেটারের নাম – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর প্রতিবেদক :: মাঠে ক্রিকেট নেই। একাধিক আন্তর্জাতিক সিরিজও স্থগিত হয়ে গেছে। কিন্তু বাংলাদেশের নির্বাচকরা বসে নেই। জাতীয় দলের কন্ডিশনিং ক্যাম্পের জন্য ৩৮ ক্রিকেটারের নাম চূড়ান্ত করে এবার হাই পারফরম্যান্স (এইচপি) স্কোয়াডের ক্যাম্পের জন্য ২৬ জনের দলও গড়েছেন তাঁরা। সবমিলিয়ে ৬৪ ক্রিকেটারের নাম নিয়ে প্রস্তুত নির্বাচকরা।

 

কাগজে-কলমে দল প্রস্তুত করে রাখার কাজ নির্বাচকরা এগিয়ে রাখলেও খেলা কবে মাঠে গড়াবে কিংবা অনুশীলন কবে শুরু হবে, সে বিষয়টি এখনও অনিশ্চয়তার দোলাচলে দুলছে। যদিও শোনা যাচ্ছে, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) চলতি মাসের ২০ তারিখের দিকে অনুশীলন শুরু করার একটি সম্ভাব্য সময় নির্ধারণ করে রেখেছিল। তবে এই তারিখে অনুশীলন শুরু না হওয়ার সম্ভাবনাই এখন বেশি দেখা যাচ্ছে।

 

প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন বলছেন, ‘মধ্য আগস্ট নাগাদ ক্যাম্প শুরু হতে পারে। তবে সবকিছুই নির্ভর করছে পরিস্থিতি কেমন থাকে, তার ওপর। সরকারের অনুমতি পেলেই কেবল শুরু করা সম্ভব।’

 

‘আমরা আমাদের দায়িত্ব পালন করে রাখছি। কন্ডিশনিং ক্যাম্পের জন্য দল আগেই করা আছে। কালকে (রোববার) এইচপি দল নিয়ে কাজ করলাম। জাতীয় দলের ক্যাম্পের জন্য ৩৮ জন, এইচপির জন্য ২৬ জনের নাম আছে।’

 

প্রধান নির্বাচক সংবাদমাধ্যমকে জানান, সরকারের অনুমতি পেলে এক সপ্তাহের মধ্যে জাতীয় দলের এবং এইচপির ক্যাম্প শুরু করা সম্ভব। এইচপির ক্যাম্প ঢাকার বাইরে কোথাও হতে পারে।

 

নির্বাচকদের গড়া এইচপি স্কোয়াডে কারা আছেন?

 

মিনহাজুল আবেদীন বলেন, ‘গতবারের বেশ কিছু ক্রিকেটার এবারও থাকছে এইচপিতে। যুব বিশ্বকাপজয়ী দলের অনেককে রেখেছি। একটা বড় সমস্যা হয়েছে প্রিমিয়ার লিগ না হওয়ায়। সাধারণত প্রতিবারই আমরা প্রিমিয়ার লিগের পারফরম্যান্স দেখে কিছু ক্রিকেটার নেই। গতবারও বিপ্লব (আমিনুল ইসলাম), নাঈম শেখদের নিয়েছি প্রিমিয়ার লিগ দেখে। এবার (লিগ না হওয়ায়) সেই সুযোগ নেই।’

 

‘তারপরও আমরা অপশন (সুযোগ) রেখে দিচ্ছি। কিছু ক্রিকেটারকে পরে যোগ করতে পারি। সবকিছুই আসলে নির্ভর করবে পরিস্থিতির ওপর। কখন অনুশীলন শুরু হয়, ঢাকা লিগ হয় কিনা, সময়ই অনেক কিছু ঠিক করে দেবে।’–যোগ করেন তিনি।

 

গেল মার্চের মাঝামাঝি থেকে দেশে সব ধরনের ক্রিকেট বন্ধ আছে। বাংলাদেশের পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও যুক্তরাজ্য সফর স্থগিত হয়ে গেছে। নিউজিল্যান্ড আসার কথা ছিল বাংলাদেশে, সেটিও স্থগিত। এছাড়া সেপ্টেম্বরে এশিয়া কাপ হওয়ার কথা ছিল। স্থগিত হয়ে গেছে এই টুর্নামেন্টও।

 

অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হওয়ার কথা। কিন্তু সেটি নিয়েও আছে শঙ্কা। সবমিলিয়ে বাংলাদেশ জাতীয় দল এ বছর আর মাঠে ফিরবে কিনা, তা অনিশ্চয়তার আকাশে মেঘবন্দী!

শেয়ার করুন :