নজরে রাজিন-আফতাব, খুলতে পারে জাতীয় দলের দরজা নজরে রাজিন-আফতাব, খুলতে পারে জাতীয় দলের দরজা – SportsTour24

মোহাম্মদ আফজাল :: বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোচ রাসেল ডমিঙ্গো চান তাঁর সহকারী কোচ হিসেবে স্থানীয় কোনো কোচ যেন থাকেন। ২০২৩ বিশ্বকাপের পর যাতে স্থানীয় কোচের হাতে জাতীয় দলের দায়িত্ব তুলে দিয়ে যেতে পারেন তিনি। জাতীয় দলের সহকারী কোচ হওয়ার মতো অনেকেই ঢাকায় আছেন বলে মনে করেন জাতীয় দলের এই কোচ।

 

কার্যত স্থানীয় কোচরা নিজেদের সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়ে যাচ্ছেন দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে। বিশেষ করে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) এবং ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে (ডিপিএল) তাঁদের সাফল্যে মুগ্ধ টাইগারদের কোচ।

 

বাংলাদেশ ঘরোয়া ক্রিকেট তথা বিপিএল, এনসিএল, বিসিএল এবং ডিপিএলে স্থানীয় কোচদের মধ্যে অনেকেই সফল। একমাত্র বিপিএল বাদ দিলে বাকি সব ঘরোয়া ক্রিকেট আসরে স্থানীয় কোচরা প্রধান কোচের দায়িত্ব পালন করেন। স্থানীয় সফল কোচদের তালিকায় নাম আসবে মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন, জাফরুল এহসান, মিজানুর রহমান বাবুল, মাহবুব আলী জাকি এবং ফয়সাল হোসাইন ডিকেন্সদের নাম। তাঁদের অনেকেই বিসিবির অধীনে কাজ করছেন এইচপি দল, বাংলাদেশ ‘এ’ দল এবং ইমার্জিং দলের হয়ে।

 

সর্বশেষ আইসিসি যুব বিশ্বকাপে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল চ্যাম্পিয়ন হয়। যে দলের সাপোর্ট স্টাফে ছিলেন বাংলাদেশী দুই কোচ। বোলিং কোচের দায়িত্বে ছিলেন মাহবুব আলী জাকি এবং ফিল্ডিং কোচ হিসেবে ছিলেন ফয়সাল হোসাইন ডিকেন্স। দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে হওয়া এ যুব বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের বোলিং এবং ফিল্ডিং ছিল দুর্দান্ত। এ দুই কোচের কাজেও সন্তুষ্ট বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তাঁদের এই সাফল্য দেখে স্থানীয় কোচদের যুব দলের দায়িত্ব দিতে আগ্রহ দেখাচ্ছে বিসিবি।

 

বেশ কিছু দিন ধরে বিকেএসপিতে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অনুশীলন ক্যাম্প চলছে , যে দলের ব্যাটিং কোচ হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে জাতীয় দলের সাবেক ওপেনার মেহরাব হোসেন অপিকে, বোলিং কোচ হিসেবে রাখা হয়েছে সাবেক জাতীয় ক্রিকেটার তালহা জুবায়েরকে।

 

ঘরোয়া ক্রিকেটে স্থানীয় কোচদের তালিকায় নতুন কিছু নামও যোগ হয়েছে। সেই তালিকায় আছেন রাজিন সালেহ, আফতাব আহমেদ, সৈয়দ রাসেল, ডলার মাহমুদ এবং তালহা জুবায়ের। জাতীয় দলের সাবেক এই তারকা ক্রিকেটাররা কোচ হিসেবেও আলো ছড়াতে শুরু করেছেন ঘরোয়া ক্রিকেটে। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে লিজেন্ড অব রূপগঞ্জের প্রধান কোচ ছিলেন আফতাব আহমেদ। সেবার তাঁর দল রানার্সআপ হয়েছিল।

 

রাজিন সালেহও কোচ হিসেবে সফল দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে। প্রধান কোচ হিসেবে জাতীয় ক্রিকেট লিগে সিলেটকে টায়ার-২ চ্যাম্পিয়ন করিয়েছেন। সর্বশেষ বিপিএলে ভারপ্রাপ্ত প্রধান কোচের দায়িত্ব পেয়ে সফল হয়েছিলেন রাজিন। চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল তাঁর দল রাজশাহী রয়্যালস। এছাড়া ডিপিএল, বিসিএলেও কাজ করছেন সহকারী কোচ হিসেবে।

 

তালহা জুবায়ের জাতীয় ক্রিকেট লিগে ঢাকা মেট্রোর তিনবার প্রধান কোচ ছিলেন। এছাড়াও ডলার মাহমুদ ও সৈয়দ রাসেলদের সাফল্যও চোখে পড়ার মতো।

 

কোচিংয়ে নবীন এ পাঁচ তারকা আছেন বিসিবির গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটির পরিকল্পনায়।

জানতে চাইলে বিসিবির গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন স্পোর্টসট্যুর২৪ডটকমকে বলেন, ‘দেশের সব কোচদের নিয়েই ভাবছে বিসিবি। গেম ডেভেলপমেন্ট ক্রিকেটারদের উন্নয়নের পাশাপাশি স্থানীয় কোচদের উন্নয়নে কাজ করে থাকে। কোচদের রিফ্রেশমেন্টের একটা ব্যাপার থাকে, তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও করা হয়।’

 

স্থানীয় কোচদের ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কাজের সুযোগ করে দিচ্ছে বিসিবি। ঘরোয়া ক্রিকেটের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও সাফল্য পাচ্ছেন অনেকে। সর্বশেষ যুব বিশ্বকাপই যার জলজ্যান্ত প্রমাণ। যেখানে বোলিং কোচ হিসেবে মাহবুব আলী জাকি এবং ফিল্ডিং কোচ হিসেবে ফয়সাল হোসাইন ডিকেন্স সফলতা দেখিয়েছেন।

 

তাঁদের সাফল্যে মুগ্ধ বিসিবির গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন।

স্পোর্টসট্যুর২৪ডটকমকে সুজন বলছিলেন, ‘‘কোচিংয়ে স্থানীয় অনেক কোচ ভাল করছেন। যেমন সাম্প্রতিক সময়ে এইচপি দল এবং ‘এ’ দলে স্থানীয় অনেকে কাজ করার সুযোগ পাচ্ছেন। মাহবুব আলী জাকি এবং ফয়সাল হোসাইন ডিকেন্স সর্বশেষ যুব বিশ্বকাপে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বোলিং এবং ফিল্ডিং কোচের দায়িত্বে ছিলেন। মিজানুর রহমান বাবুল, জাফরুল এহসান তাঁরাও এইচপি এবং ইমার্জিং দলের সাথে কাজ করছেন। সম্প্রতি বিকেএসপিতে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের যে অনুশীলন ক্যাম্প চলছে সেখানেও মেহরাব হোসেন অপি এবং তালহা জুবায়েরকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।’’

 

স্থানীয়রা কোচদের সাফল্যের ধারাবাহিকতা যদি অটুট থাকে, অদূর ভবিষ্যতে হয়তো জাতীয় দলের সহকারী কোচ হিসেবে তাঁদের কাউকে দেখা যেতে পারে। এক্ষেত্রে স্থানীয় কোচদের আগ্রহও আছে যথেষ্ট।

 

সম্প্রতি জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার ও বর্তমানে সিলেট বিভাগীয় দলের কোচ রাজিন সালেহ স্পোর্টসট্যুর২৪ডটকমকে বলেন, তিনি জাতীয় দলের ফিল্ডিং কোচ হতে এখন কাজ করছেন।

শেয়ার করুন :