দেশে প্রস্তুতি কমিয়ে আগেই শ্রীলঙ্কায় যাওয়ার ভাবনায় বিসিবি দেশে প্রস্তুতি কমিয়ে আগেই শ্রীলঙ্কায় যাওয়ার ভাবনায় বিসিবি – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর প্রতিবেদক :: দীর্ঘ বিরতি শেষে বাংলাদেশ ক্রিকেটে ফিরছে আগামী অক্টোবরে। ২৪ অক্টোবর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তাঁদের মাটিতে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট শুরু হওয়ার কথা। তবে এর আগে ২৩ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কায় উড়াল দেবে জাতীয় দল ও হাই পারফরম্যান্স (এইচপি) দল।

 

লঙ্কায় যাওয়ার আগে বাংলাদেশ সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে দেশে ১০-১২ দিন অনুশীলন করবে। এমনটাই জানিয়েছিলেন বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা কমিটির প্রধান আকরাম খান।

 

তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন দেশে প্রস্তুতি ক্যাম্পের সময় কমিয়ে আরো আগেই শ্রীলঙ্কায় যাওয়ার পক্ষে।

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আজ শনিবার ঢাকার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দরিদ্রদের মধ্যে খাবার বিতরণ করে বিসিবি।

 

পরে ক্রিকেট নিয়ে কথা বলেন বিসিবি প্রধান।

 

তিনি বলেন, ‘আমরা দেশের মাটিতে খেলা শুরু করছি না, কিন্তু শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়ার কথা বলছি। কেন? কারণ একটাই। আমরা গত কিছু দিন আগ পর্যন্ত জানি শ্রীলঙ্কা ও নিউজিল্যান্ড নিরাপদ…শ্রীলঙ্কায় গত কয়েক মাস ধরে কোনো নতুন (করোনা) পজিটিভ পাওয়া যাচ্ছে না দেখে আমাদের মনে হয়েছে, খেলা যদি শুরু করতে হয় তাহলে ওখানে যাওয়াই নিরাপদ। সেই জন্য আমরা প্রথমে শ্রীলঙ্কাকে বেছে নিয়েছি।’

 

আগেই শ্রীলঙ্কায় যাওয়ার পেছনে নাজমুল হাসান পাপন যুক্তি দেখাচ্ছেন, ‘এখানে ঝুঁকি আছে…সেই জন্য আমি ওদের বলেছি, যত অনুশীলন প্রয়োজন সেটা এখানে কমিয়ে শ্রীলঙ্কায় নিয়ে যেতে। এখানে ক্যাম্প সংক্ষেপ করে যদি আমরা শ্রীলঙ্কায় যাই, যেহেতু সেখানে (করোনার সংক্রমণ) ধরা পড়ছে না, তাই ধরে নিতে পারি, আমাদের চেয়ে ওদের অবস্থা অনেক নিরাপদ। অন্তত এই মুহূর্তে। এজন্য ওখানে বেশি সময় থেকে, বেশি সময় ধরে যদি ক্যাম্প করি, সেটা ভালো হবে।’

 

ঈদের আগে থেকে শুরু হয়েছে বিসিবির তত্ত্বাবধানে একক অনুশীলন। ধীরে ধীরে বাড়ছে ক্রিকেটারের সংখ্যা। এখান থেকে সামনের চ্যালেঞ্জের প্রাথমিক একটা ধারণা পেয়েছেন নাজমুল হাসান।

দেশে ক্যাম্প শুরুর আগে ক্রিকেটারদের করোনা পরীক্ষা করানো হবে বলে জানিয়েছেন বিসিবি প্রধান। এ পরীক্ষা হবে তিন ধাপে।

 

‘ওরা তো বাড়িতে থাকতেই যার যার পরীক্ষা করিয়ে আসবে। আমাদের বলে দেওয়া ল্যাব থেকে পরীক্ষা করাতে হবে, যেখানে-সেখানে করলে হবে না। আমরাই করাব তবে বাসা থেকে করে আসতে হবে। আশা করি, সবাই নেগেটিভ হবে। যারা নেগেটিভ তাদেরকে আমরা ক্যাম্পে ডাকব। ক্যাম্পে আসার পরপর আমরা আরেকবার করোনাভাইরাস পরীক্ষা করাব। এর তিন দিন পর আবার করাব। মোট তিনটা পরীক্ষা হবে। এখানে আসার পথেও করোনা আক্রান্ত হতে পারে। যতটুকু সম্ভব স্ট্রিক্ট হব।’

 

ক্রিকেটারদের রাখার জন্য উপযুক্ত হোটেল বা বাসার খোঁজ করছে বিসিবি।

 

পাপলন বলেন, ‘এমন একটা হোটেল কিংবা বাসা চাই যেখানে বাইরের কেউ নেই। ফাইভ স্টার হোটেলে যেতে হলে একটা দুইটা ফ্লোর পুরোপুরি ওদের জন্য আলাদা থাকতে হবে। ওখানে বাইরের কোনো ক্লিনার, কেউ ঢুকতে পারবে না। ওই দুই ফ্লোরের ক্লিনার উপরেও যেতে পারবে না নিচেও নামতে পারবে না। আইসোলেশন যেভাবে করতে হয় সেভাবে করতে হবে। হোটেল না পেলে বাসা দেখতে হবে।’

শেয়ার করুন :