দল ঘোষণায় ডমিঙ্গোর অপেক্ষায় বাংলাদেশ দল ঘোষণায় ডমিঙ্গোর অপেক্ষায় বাংলাদেশ – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর প্রতিবেদক :: বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নির্বাচকরা একটি খসড়া দল তৈরি করে রেখেছেন। নেওয়া হয়েছে টেস্ট দলের অধিনায়ক মুমিনুল হকের মতামতও। এখন শুধু প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর অপেক্ষা। তিনি এলেই তাঁর সাথে কথা বলে শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য দল চূড়ান্ত করা হবে।

 

দু-একদিনের মধ্যে দল ঘোষণার কাজটি হয়ে যেতে পারে। কেননা, আজ রাতেই ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুককে সাথে নিয়ে ঢাকায় পৌঁছার কথা রয়েছে।

 

বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কা সফরে যাবে চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে। সেখানে এক মাসের অনুশীলন শেষে ২৪ অক্টোবর থেকে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট শুরু হওয়ার কথা। শ্রীলঙ্কায় যাবে হাই পারফরম্যান্স (এইচপি) ইউনিট। শুরুতে প্রায় দুই সপ্তাহ জাতীয় দলের সাথে অনুশীলন করবে তাঁরা। পরে নিজেদের সিরিজ খেলতে এইচপি ইউনিট আলাদা হয়ে যাবে।

 

শ্রীলঙ্কায় যাওয়ার আগে দেশে সপ্তাহখানেকের অনুশীলন ক্যাম্প করতে চায় বাংলাদেশ। ২১ সেপ্টেম্বর এই ক্যাম্প শুরু হতে পারে ঢাকার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

 

গেল ঈদ-উল-আযহার আগে থেকেই বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা একক অনুশীলন করছেন। তবে মহামারিকালে একসঙ্গে দলীয়ভাবে অনুশীলন করা হয়নি তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিমদের। শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য দল চূড়ান্ত হয়ে গেলে দলের সবাই একসাথে অনুশীলনে নামবেন।

 

শ্রীলঙ্কা সফরে বাংলাদেশ স্কোয়াড খানিকটা বড় হবে। মূলত মহামারি করোনার বিষয়টি বিবেচনায় রেখে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজের জন্য ২০ সদস্যের স্কোয়াড হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু।

 

তিনি জানান, স্কোয়াড নিয়ে টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকের সাথে কথাবার্তা শেষ হয়েছে। তিনি তাঁর মতামত দিয়েছেন। এখন প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর সঙ্গে কথাবার্তা বলে তাঁর মতামত নিয়ে দল ঘোষণা করা হবে। ৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দল চূড়ান্ত হয়ে যেতে পারে।

 

দক্ষিণ আফ্রিকান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর ঢাকায় ফেরার কথা ছিল ২ সেপ্টেম্বর। সঙ্গে স্বদেশী ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুকও থাকার কথা ছিল। তবে ওই দিন তাঁরা ফিরতে পারেন নি ফ্লাইট বাতিল হওয়ায়।

 

তবে বর্তমানে আরব আমিরাতের দুবাইতে অবস্থান করছেন তাঁরা। আজ রাত সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকায় পৌঁছে সরকারি নির্দেশনা মেনে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকবেন তাঁরা। এরপর ২১ সেপ্টেম্বর দলকে নিয়ে নামবেন মাঠে।

 

তবে বিসিবি সূত্র বলছে, প্রধান কোচসহ কোচিং স্টাফের অন্য সবাইকে করোনা পরীক্ষা করিয়ে নেগেটিভ ফলাফল এলে তাঁদের নিয়ে মাঠে কাজ শুরু করতে চায় বিসিবি। এক্ষেত্রে কোয়ারেন্টিনে না রাখার মনোভাব আছে।

শেয়ার করুন :