তামিমদের ওয়ানডে টুর্নামেন্টে ৮ ক্যামেরা, ১০ লাখ টাকা তামিমদের ওয়ানডে টুর্নামেন্টে ৮ ক্যামেরা, ১০ লাখ টাকা – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর প্রতিবেদক :: করোনাকালকে পেছনে ফেলে প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে ফিরছে বাংলাদেশ। পরশু রোববার থেকে শুরু হচ্ছে ‘‘বিসিবি প্রেসিডেন্ট’স কাপ’’। তিনটি দল নিয়ে ঘরোয়া এ ওয়ানডে টুর্নামেন্টকে বর্ণিল করতে চায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এজন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে।

 

কথা ছিল বাংলাদেশ যাবে শ্রীলঙ্কা সফরে। খেলবে তিনটি টেস্ট ম্যাচ। কিন্তু তা হয়নি, সিরিজ স্থগিত হয়ে গেছে। ফলে গেল মধ্য মার্চের পর থেকে ম্যাচের বাইরে থাকা ক্রিকেটারদের ম্যাচে ফেরাতে ভাবনা বাড়ে বিসিবির।

 

এরই পদক্ষেপ হিসেবে গেল ২ ও ৩ অক্টোবর জাতীয় দলের স্কিল ক্যাম্পে থাকা ক্রিকেটাররা দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেন। পরে গত সোম ও মঙ্গলবার খেলেন আরেকটি ম্যাচ।

 

এবার বিসিবি জাতীয় দল এবং হাই পারফরম্যান্স দলের ক্রিকেটারদের সমন্বয়ে আয়োজন করেছে তিন দলের ওয়ানডে টুর্নামেন্ট। রোববার শুরু হয়ে এটি শেষ হবে ২৩ অক্টোবর ফাইনালের মধ্য দিয়ে। দলটি তিনটি হচ্ছে- তামিম একাদশ, মাহমুদউল্লাহ একাদশ ও শান্ত একাদশ। তামিম ইকবাল, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও নাজমুল হোসেন শান্ত দলগুলোর নেতৃত্বে আছেন।

 

ডাবল লিগ পদ্ধতিতে টুর্নামেন্টে প্রত্যেক দল প্রত্যেকের মুখোমুখি হবে দু’বার করে।

 

এই টুর্নামেন্টকে জাঁকজমক করতে বিসিবির আয়োজনের কমতি নেই। ঘরোয়া প্রস্তুতিমূলক টুর্নামেন্ট হলেও নির্বাচক, টিম ম্যানেজমেন্ট সবার চোখ থাকবে ক্রিকেটারদের দিকে। ক্রিকেটারদের জন্য টুর্নামেন্টে রাখা হচ্ছে আর্থিক প্রণোদনার ব্যবস্থা। থাকছে চ্যাম্পিয়ন ট্রফি, রানারআপ ট্রফি। ব্যক্তিগত পুরস্কারের জন্য ম্যান অব দ্য ম্যাচ, ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট, সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক, সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি পুরস্কারের ব্যবস্থা থাকছে।

 

টুর্নামেন্টকে বর্ণিল করতে ফ্লাড লাইটের আলোয় সব ম্যাচ আয়োজন করা হচ্ছে। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে সব’কটি ম্যাচ শুরু হবে দুপুর দেড়টায়।

 

সবগুলো ম্যাচ লাইভ স্ট্রিমিং করতে মাঠে বসানো হচ্ছে ৮টি ক্যামেরা। এছাড়া টিভিতে সম্প্রচারের চিন্তাও করছে বিসিবি। পাশাপাশি রেডিওতে ধারাভাষ্যের ব্যবস্থা করা নিয়েও চলছে তোড়জোড়।

 

তিন দল নিয়ে তামিমদের ‘‘বিসিবি প্রেসিডেন্ট’স কাপ’’

ওয়ানডে টুর্নামেন্টে অধিনায়ক তামিম, মাহমুদউল্লাহ, শান্ত

 

বিসিবি সূত্র বলছে, টুর্নামেন্টে সবমিলিয়ে আর্থিক পুরস্কারের পরিমাণ প্রায় ১০ লাখ টাকা হবে। প্রতি ম্যাচে সেরা খেলোয়াড়ের জন্য ২৫ হাজার টাকা বরাদ্দ করার চিন্তা রয়েছে বিসিবির।

 

বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সংবাদমাধ্যমকে বলছিলেন,‘আর্থিক ব্যাপারগুলো বিবেচনায় আছে। কীভাবে আর্থিক প্রণোদনা দেওয়া যায়, সেটা দেখা হচ্ছে। ক্রিকেটাররা যাতে খুশি মনে খেলে এবং চ্যাম্পিয়ন হলে একটা সম্মানী পায় সে ব্যবস্থা থাকবে।’

শেয়ার করুন :