চ্যালেঞ্জে জয়ী মোহাম্মদ হাফিজ চ্যালেঞ্জে জয়ী মোহাম্মদ হাফিজ – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর ডেস্ক :: আগের ম্যাচে বিশাল স্কোর গড়েও হারতে হয় পাকিস্তানকে। কাল রাতেও তাঁরা গড়লো ১৯০ রানের পাহাড়সম স্কোর। তবে এবার আর হার নয়, জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ইংল্যান্ড সফরকারীরা।

 

ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে পাকিস্তান করেছিল ৫ উইকেটে ১৯০ রান। ইংল্যান্ড ৮ উইকেট ১৮৫ রান করে থামে। ৫ রানের জয় নিয়ে সিরিজ ১-১ সমতায় শেষ করে পাকিস্তান।

 

পাকিস্তানের এই ম্যাচ জয়ের নায়ক মোহাম্মদ হাফিজ। ৫২ বলে অপরাজিত ৮৬ রান করেন তিনি। সিরিজের উভয় ম্যাচে ফিফটি করা হাফিজের হাতেই ওঠেছে ম্যান অব দ্য সিরিজের পুরস্কার।

 

এই সিরিজটা ৪০ বছর ছুঁই ছুঁই মোহাম্মদ হাফিজের জন্য অন্যরকম এক চ্যালেঞ্জের ছিল। তাঁকে যখন দলে নেওয়া হয়, তখন পাকিস্তানে অনেকেই সমালোচনা করেন। ‘বুড়িয়ে যাওয়া’ হাফিজকে অবসর নিতেও বলেন কেউ কেউ।

 

কিন্তু সব সহ্য করেছেন হাফিজ নিরবে। টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটিতে৩৬ বলে ৬৯ রানের আগ্রাসী ইনিংস খেলে একটা জবাব দেন। এরপর দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে ওই ৫২ বলে ৮৬ রান দিয়ে চ্যালেঞ্জের মুখে যেন জয়ী হলেন এই ওপেনার।

 

তবে সিরিজ শেষে হাফিজ বললেন, দলের জন্য পারফর্ম করাটাই আসল।

 

‘দলের প্রয়োজনের সময় পারফর্ম করতে পেরে আমি খুশি। পাকিস্তান দলের সবাই চেষ্টা করছে পাওয়ার হিটিংয়ে উন্নতি করতে। প্রতিটি ম্যাচেই আমি চেষ্টা করি শতভাগ দিতে এবং পাকিস্তানের সম্মানের জন্য খেলতে।’

 

সিরিজসেরা হাফিজ কালকের ম্যাচে হায়দার আলীর ব্যাটিংয়ে মুগ্ধ হয়েছেন। ১৯ বছর বয়সী এই তরুণ টি-টোয়েন্টির অভিষেকেই করেছেন ঝড়ো ফিফটি। দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ৩৩ বলে ৫৪ রানে করেন হায়দার। পাকিস্তানের পক্ষে টি-টোয়েন্টিতে অভিষেকেই ফিফটির প্রথম রেকর্ড এটি।

 

হায়দার আলী নিজের আগমনী জানান দিচ্ছিলেন বেশ কিছুদিন ধরেই। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে খেলেন এই তরুণ। পাকিস্তান সুপার লিগেও নিজের প্রতিভার স্বাক্ষর রাখেন। এবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের অভিষেকেই ছড়ালেন আলো।

 

সিরিজ শেষে মোহাম্মদ হাফিজের কণ্ঠে তাই হায়দারের প্রশংসা, ‘‘চাপের মধ্যে সে দারুণ খেলেছে এবং নিজেকে মেলে ধরেছে। আমি স্রেফ তাকে বলছিলাম নিজের ওপর আস্থা রাখতে, বলছিলাম যে, ‘তুমি ভালো খেলছো, এভাবেই চালিয়ে যাও।’ এটা দারুণ যে, আমাদের সিস্টেম থেকে তরুণরা উঠে আসছে এবং পারফর্ম করছে।”

শেয়ার করুন :