খেলরত্ন পুরস্কারের যোগ্য নই: হরভজন সিং খেলরত্ন পুরস্কারের যোগ্য নই: হরভজন সিং – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর ডেস্ক :: ভারতের ‘খেলরত্ন’ পুরস্কারের জন্য দেশটির সাবেক অফস্পিনার হরভজন সিংয়ের নাম দিয়েও পরে তা তুলে নেয় পাঞ্জাব সরকার। সেই বিতর্কেই এবার জল ঢাললেন ‘ভাজ্জি’। বললেন, ‘ওটা পাঞ্জাব সরকারের ভুল নয়। আমিই আসলে খেলরত্ন পুরস্কারের যোগ্য নই!’

 

গেল কিছু দিন ধরেই হরভজন সিংকে কেন খেলরত্ন পুরস্কার দেওয়া যাবে না, সেই বিতর্কে সরগরম ভারতের ক্রিকেটমহল থেকে শুরু করে হরভজনের ভক্তরা। আর এমনই সন্ধিক্ষণে তাঁর বক্তব্য, তিন বছর ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পারফর্ম করেন নি তিনি। আর খেলরত্ন পুরস্কারের জন্য যে বিষয়টা খুব ভালো করেই বিবেচনা করা হয়।

 

৪০ বছর বয়সী হরভজন মনে করছেন, ২০১৬ সালের পর থেকে কোনও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচ খেলেননি বলেই খেলরত্ন পুরস্কার প্রাপকের তালিকা থেকে তাঁর নামটি সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

 

শনিবার টুইটারে হরভজন লিখেছেন, ‘প্রিয় বন্ধুরা, আমার কাছে প্রচুর ফোন আসছে। মানুষ জানতে চাইছেন যে, কেন পাঞ্জাব সরকার খেলরত্ন পুরস্কারের মনোনয়ন থেকে আমার নাম সরিয়ে নিল? আসল সত্যিটা হল, আমি ওই পুরস্কারের যোগ্যই নই। কারণ এই পুরস্কার পেতে গেলে, শেষ তিন বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পারফরম্যান্স পরিসংখ্যানে রাখা হয়।’

 

‘ভাজ্জি’ আরো লিখেছেন, ‘পাঞ্জাব সরকারের কোনও ভুলই নেই। আমার নাম তুলে নিয়ে তাঁরা বরং ঠিকই করেছেন। কোনোও গুজব না রটাতে আমার বন্ধুবান্ধব এবং মিডিয়ার কাছে অনুরোধ করবো।’

 

গেল বছরও হরভজন সিংয়ের সঙ্গে এই একই কাণ্ডের পুনরাবৃত্তি ঘটেছিল। সেবার রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রকের তরফে দাবি করা হয়েছিল যে, অনেক দেরিতে হরভজনের ডকুমেন্টস এসে পৌঁছেছিল বিধায় তাঁর নাম দেওয়া যায় নি।

 

ওই সময়ে হরভজন সিংহ ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন। তিনি পাঞ্জাবের ক্রীড়ামন্ত্রী রানা গুরমিত সিংয়ের কাছে বিষয়টি খতিয়ে দেখার অনুরোধও করেছিলেন।

 

২০১৬ সালের ৩ মার্চ এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টিতে সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিরুদ্ধে ম্যাচটিই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে হরভজন সিংয়ের শেষ ম্যাচ। ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসে তৃতীয় সফলতম বোলার হরভজন।

 

১০৩ টেস্ট ম্যাচ খেলে তাঁর ঝুলিতে রয়েছে ৪১৭টি উইকেট। ১৯৯৮ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিল হরভজন সিংয়ের। ওয়ানডেতে ২৩৬টি ম্যাচ খেলে ২৬৯টি উইকেট নিয়েছেন তিনি। আর টি-টোয়েন্টিতে ২৮ ম্যাচে তাঁর উইকেট ২৫টি।

শেয়ার করুন :