ক্ষুব্ধ ডি মারিয়াকে আশা দিলেন আর্জেন্টিনার কোচ ক্ষুব্ধ ডি মারিয়াকে আশা দিলেন আর্জেন্টিনার কোচ – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর ডেস্ক :: আনহেল ডি মারিয়া রীতিমতো যুদ্ধের ডাক দিয়েছিলেন। তবে লিওনেল স্কালোনি হাঁটলেন শান্তির পথে। রাগ দেখিয়েছিলেন ডি মারিয়া। আশার বাণী শুনালেন স্কালোনি।

 

আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের দুটি ম্যাচ খেলতে যাচ্ছে আগামী মাসে। ৮ অক্টোবর ইকুয়েডরের বিপক্ষে এবং ১৪ অক্টোবর বলিভিয়ার বিপক্ষে খেলবেন মেসিরা।

 

ওই দুই ম্যাচের জন্য ৩০ সদস্যের স্কোয়াড দিয়েছেন আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনি। সেখানে স্থান হয়নি ডি মারিয়ার।

 

পিএসজির হয়ে দারুণ একটি মৌসুম কাটানোর পরও জাতীয় দলে স্থান পেয়ে ক্ষুব্ধ হন ডি মারিয়া। নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করতে কোনো রাখঢাকা করেন নি এই পিএসজি তারকা।

 

ডি মারিয়া বলেন, ‘এর (জাতীয় দলে ডাক না পাওয়া) কোন ব্যাখ্যা আমার কাছে নেই। আমার কাছে আর্জেন্টিনা জাতীয় দলই সবার আগে। জাতীয় দলে ডাক পেতে গাধার মতো খাটুনি দিতে হবে কী-না কে জানে। ভালো সময়ে আমি ডাক পেলাম না, এটার কারণ বোঝা কঠিন।’

 

অনেকের ধারণা, বয়স বিবেচনায় ডি মারিয়াকে দলে রাখা হয়নি। কিন্তু দলে যে ডি মারিয়ার চেয়েও বেশি বয়সী লিওনেল মেসি, নিকোলাস ওতামেন্দিরা আছেন।

 

ডি মারিয়ার প্রশ্ন, ‘৩২ বছর বয়সেই আমি বুড়ো? ৩২ বছর বয়সেই যদি সবার বিকল্প খোঁজা শুরু হয় তাহলে সেটা সবার ক্ষেত্রেই করা হোক। মেসি, ওতামেন্দি—আরও যারা এই বয়সে শীর্ষ পর্যায়ে খেলে যাচ্ছে তাদের ক্ষেত্রেও করা হোক। আমি দলে না থাকলে তাদেরও এ কারণে থাকা উচিত নয়।’

 

ক্ষুব্ধ ডি মারিয়ার এমন প্রতিক্রিয়া শুনে উল্টো বিরূপ কোনো প্রতিক্রিয়া দেখান নি আর্জেন্টাইন কোচ। তিনি বরং আশাই দেখাচ্ছেন তাঁকে।

 

স্কালোনি বলছিলেন, ‘আমরা কারও জন্য দরজা (জাতীয় দলের) বন্ধ করিনি, একেবারেই না। বরং উল্টো, জাতীয় দল সবার জন্য। বর্তমানে আমরা এদের ডেকেছি, কিন্তু এর মানে এটা নয় যে ভবিষ্যতে পরিস্থিতি বদলাবে না।’

 

চরম ক্ষুব্ধ ডি মারিয়া

 

ডি মারিয়া ক্ষোভ থেকে অবসর নিয়ে ফেলেন কী-না, সেই শঙ্কা থেকে স্কালোনি বলছেন, আবেগতাড়িত হয়ে জার্সি না খুলতে (অবসর না নিতে)।

 

‘যারা আগে খেলার সুযোগ পেয়েছে (কিন্তু এখন পাচ্ছে না), তাদের বলব প্রকল্পের ওপর আস্থা রাখতে এবং জার্সি না খুলতে।’

 

‘হোসে পেকেরমান (সাবেক আর্জেন্টিনা কোচ) ফুটবল বোঝার ও জাতীয় দলের সম্মান রক্ষার বিষয়টি আমাদের মাথায় ঢুকিয়ে দিয়েছিলেন। সবাই এ বার্তাটা গ্রহণ করেছে এবং কেউ মন খারাপ করেনি। যারা খেলছে না তাদের পাশ থেকে সমর্থন দিতে হয় এবং তারা সেটা বুঝেছে। বর্তমান প্রজন্মও দেশের জন্য তাদের সেরাটা দিতে প্রস্তুত।’

শেয়ার করুন :