এবারের বিগ ব্যাশে চমকপ্রদ তিন নিয়ম এবারের বিগ ব্যাশে চমকপ্রদ তিন নিয়ম – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর ডেস্ক :: অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট বিগ ব্যাশে ক্রিকেটের নিত্য-নতুন সব উদ্ভাবনী চিন্তার প্রতিফলন দেখা যায়। ব্যতিক্রম নয় এবারের দশম আসরও। এ আসরে চমকপ্রদ তিনটি নিয়ম সংযোজন করছে বিগ ব্যাগ কর্তৃপক্ষ।

 

এই তিন সংযোজন হলো- ‘পাওয়ার সার্জ’, ‘এক্স-ফ্যাক্টর’ ও ‘ব্যাশ বুস্ট।’

 

অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট বোর্ড তথা ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ) নতুন এই নিয়মগুলোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

 

আয়োজকরা বলছেন, কুড়ি ওভারের ক্রিকেটকে আরও উত্তেজনাময়, শ্বাসরুদ্ধকর করতে, আকর্ষণ বাড়াতে এবং নতুন মাত্রা যোগ করতে এ তিন নতুন নিয়ম সহায়ক হবে। একইসাথে খেলাটির সাথে ক্রিকেটারদের সার্বিক সম্পৃক্ততা আরও বাড়বে।

 

এসব নতুন সংযোজনের পেছনে আছেন ট্রেন্ট উডহিল। আন্তর্জাতিক কিংবা ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন ভূমিকায় দেখা গেছে তাকে। গেল আগস্টে তিনি পরামর্শক হিসেবে যোগ দেন বিগ ব্যাশে।

 

নতুন তিন নিয়ম যেভাবে কার্যকর হবে>>

পাওয়ার সার্জ: বর্তমানে টি-টোয়েন্টিতে ৬ ওভার পাওয়ার প্লে থাকে। কিন্তু নতুন নিয়মে পাওয়ার প্লে শুরুতে থাকবে ৪ ওভার। বাকি দুই ওভার ব্যাটিং দল ইনিংসের ১১ ওভার থেকে যেকোনো সময় নিতে পারবে। এ দুই ওভারকে ‘পাওয়ার সার্জ’ নাম দেওয়া হয়েছে। প্রথম ৪ ওভারে ৩০ গজ বৃত্তের ভেতরে ও বাইরে ফিল্ডার রাখার নিয়ম যেভাবে, সেভাবেই এ ২ ওভারেও ফিল্ডার রাখা হবে।

 

এক্স-ফ্যাক্টর: একসময় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ‘সুপার-সাব’ চালু করা হয়েছিল। কিন্তু তা সফল হয়নি। পরে বাতিল করে দেওয়া হয় এ নিয়ম। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাতিল হওয়ার প্রায় ১৫ বছর পর নতুন মোড়কে ‘সুপার-সাব’ প্রথাকে সামনে নিয়ে আসছে বিগ ব্যাশ। বদল ক্রিকেটার নেওয়ার এ নিয়মকে ‘এক্স-ফ্যাক্টর’ নাম দেওয়া হয়েছে।

 

তবে যেকোনো সময় বদলি ক্রিকেটার নেওয়া যাবে না। প্রথম ইনিংসের ১০ ওভারের পর বদলি ক্রিকেটার নিতে পারবে উভয় দল। কিন্তু বদল ক্রিকেটারকে দলের খেলোয়াড় তালিকার দ্বাদশ বা ত্রয়োদশ ব্যক্তি হতে হবে। ইনিংসের প্রথম ১০ ওভারের মধ্যে যে ক্রিকেটার ব্যাট করেন নি কিংবা ১ ওভারের বেশি বল করেন নি, কেবল তার বদলিই নেওয়া যাবে।

 

কিন্তু ১০ ওভারের আগে কেউ চোট পেলেও বদলি নেওয়া যাবে না।

 

ব্যাশ বুস্ট: ম্যাচ জয়ে বিগ ব্যাশে আগে দুই পয়েন্ট পাওয়া যেতো। এখন পাওয়া যাবে তিন পয়েন্ট। এর সাথে আরো একটি পয়েন্ট পাওয়ার সুযোগ থাকবে ম্যাচের উভয় দলের। এই পয়েন্টের নাম ‘ব্যাশ বুস্ট’।

 

ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসের ১০ ওভার শেষে নির্ধারিত হবে এই পয়েন্ট। উভয় দলের ব্যাটিং ইনিংসে প্রথম ১০ ভারের মধ্যে যে দলের রান বেশি থাকবে, সে দলই পাবে ‘ব্যাশ বুস্ট’ পয়েন্ট।

শেয়ার করুন :