এতো বড় শাস্তি! প্রশ্ন তুললেন জোকোভিচ এতো বড় শাস্তি! প্রশ্ন তুললেন জোকোভিচ – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর ডেস্ক :: সদ্যই শেষ হওয়া ইউএস ওপেনে পুরুষ এককে ফেভারিট ছিলেন নোভাক জোকোভিচ। রাফায়েল নাদাল ও রজার ফেদেরার এবার না থাকায় জোকোভিচকেই শিরোপাজয়ী হিসেবে ভাবছিলেন অনেকেই। কিন্তু অনাকাঙ্ক্ষিত এক ঘটনায় স্বপ্ন ভেঙ্গে যায় এই সার্বিয়ান তারকার। বল দিয়ে লাইন জাজকে আঘাত করায় টুর্নামেন্ট থেকে বরখাস্ত করা হয় তাঁকে।

 

এরপর শাস্তি হিসেবে করা হয় বড় অঙ্কের জরিমানা। টুর্নামেন্ট থেকে বরখাস্তের পরও বড় অঙ্কের জরিমানা, জোকোভিচের চোখে এটা ‘বড় শাস্তি’। তিনি এই শাস্তির ন্যায্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

 

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের ফ্লাশিং মিডোসে বসেছিল ইউএস ওপেনের এবারের আসর। গেল পরশু আসরের পর্দা নেমেছে।

 

ফেভারিটের তকমা নিয়ে আসর শুরু করা নোভাক জোকোভিচ তর তর করে এগিয়ে যাচ্ছিলেন। চতুর্থ রাউন্ডের ম্যাচে স্পেনের পাবলো কারেনো বুস্তার বিপক্ষে প্রথম সেটে ৬-৫ গেমে পিছিয়ে ছিলেন জোকোভিচ। এতে প্রচণ্ড হতাশা পেয়ে বসে তাঁকে। হতাশা থেকেই আনমনে নিজের পকেট থেকে একটি বল বের করে পেছনের দিকে হিট করেন জোকোভিচ। সেই বল আঘাত করে এক লাইন জাজের গলায়।

 

নোভাক জোকোভিচ সঙ্গে সঙ্গে ওই জাজের দিকে ছুটে যান, তাঁর কাছে ক্ষমা চান। পরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও অনিচ্ছাকৃত ভুলের জন্য ক্ষমা চান এটিপি র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর তারকা।

 

জাজকে আঘাত, বহিষ্কার জোকোভিচ, ভাঙলো স্বপ্ন

 

কিন্তু নিয়ম অনুসারে টুর্নামেন্ট থেকে তাঁকে বরখাস্ত হতে হয়। শুধু তাই নয়। ইউএস ওপেনের চতুর্থ রাউন্ডে উঠে জোকোভচ আড়াই লাখ ডলার প্রাইজমানি পেয়েছিলেন। এই আড়াই লাখ ডলারের সঙ্গে আরো ১০ হাজার ডলার তাঁকে জরিমানা করা হয়।

 

বর্তমানে ইতালিয়ান ওপেন খেলতে দেশটির রোমে ব্যস্ত জোকোভিচ। সেখানেই সংবাদ সম্মেলনে ইউএস ওপেনের ওই প্রসঙ্গ ওঠলো।

 

জোকোভিচ শাস্তির ন্যায্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে বলেন, ‘এতো বড় শাস্তি ন্যায্য কী-না, এ নিয়ে অনেকের মনেই প্রশ্ন আছে। তবে আমি মেনে নিয়েছি, ঘটনাটা পেছনে ফেলে এসেছি। অবশ্যই আমি এটা ভুলিনি, মনে হয় না কখনও ভুলবো।’

 

যে ঘটনা ঘটেছে, ভবিষ্যতে এরকম ঘটবে কী-না, এর নিশ্চয়তা দিচ্ছেন না সার্বিয়ান তারকা।

 

‘আমি কথা দিতে পারব না বা নিশ্চিত করতে পারবো না যে জীবনে কখনও এমন কিছু করবো না। কোর্ট ও কোর্টের বাইরে নিজেকে সবচেয়ে ভালোভাবে উপস্থাপন করার চেষ্টা করছি। আমি জানি, আমার আবেগের বহিঃপ্রকাশটা অনেক সময় মাত্রাতিরিক্ত হয়ে যায়। তবে ব্যক্তি ও খেলোয়াড় হিসেবে আমি আগে থেকেই এমন।’

শেয়ার করুন :