এএফসি কাপের আয়োজক হচ্ছে না বসুন্ধরা কিংস এএফসি কাপের আয়োজক হচ্ছে না বসুন্ধরা কিংস – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর প্রতিবেদক :: এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (এএফসি) চিঠি পাঠিয়েছিল। যারা এএফসি কাপের আয়োজক হতে চান, তাদেরকে ১৭ জুলাইয়ের মধ্যে আবেদন করতে বলা হয় চিঠিতে। এএফসি কাপে বাংলাদেশ থেকে সুযোগ পেয়েছে বসুন্ধরা কিংস। তাদের সামনে সুযোগ ছিল আয়োজক হওয়ার। কিন্তু সেই সুযোগ বিভিন্ন কারণে নিচ্ছে না বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা।

 

বসুন্ধরা কিংসের সভাপতি ইমরুল হাসান বলছেন, ‘আমরা আবেদন করছি না। অতিরিক্ত ঝামেলা মাথায় নেওয়ার চেয়ে দলের অনুশীলনে মনসংযোগ দেয়াটাই আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ।’

 

করোনার কারণে এএফসি কাপ স্থগিত হয়ে যায়। এখন অক্টোবর থেকে ফের খেলা শুরু করতে চাইছে এএফসি। এজন্য সূচিও দেওয়া হয়েছে। বসুন্ধরা কিংস আছে ‘ই’ গ্রুপে। তাদের সাথে ভারতের চেন্নাই সিটি এফসি, মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টস এবং মাজিয়া স্পোর্টস অ্যান্ড রিক্রিয়েশন ক্লাবও আছে একই গ্রুপে।

 

সূচি অনুসারে, এই গ্রুপের বাকি ১০টি ম্যাচ ২৩, ২৬ , ২৯ অক্টোবর এবং ১ ও ৪ নভেম্বর হবে। প্রতিদিন ম্যাচ থাকবে দুটি করে।

 

এএফসির লাইসেন্স চায় বাংলাদেশের ৯ ক্লাব

 

বসুন্ধরা কিংস ২৩ অক্টোবর মাজিয়ার বিপক্ষে, ২৬ অক্টোবর চেন্নাই সিটির বিপক্ষে, ২৯ অক্টোবর ফের চেন্নাই সিটির বিপক্ষে খেলবে। এরপর টিসি স্পোর্টসের বিপক্ষে ১ নভেম্বর ও মাজিয়ার বিপক্ষে ৪ নভেম্বর খেলবে শেষ ম্যাচ দুটি।

 

এএফসি থেকে এই চারটি দলকেই চিঠি দিয়ে আগ্রহ থাকলে আয়োজক হওয়ার আবেদন করতে বলা হয়েছিল। এর মধ্যে বসুন্ধরা কিংস আগ্রহ না থাকার কথা প্রকাশ করেছে।

 

এর পেছনে অনুশীলনে মনোসংযোগ দেওয়ার কারণ যেমন আছেন, তেমনই অন্য কিছু বিষয়ও আছে।

 

যেমনটি বলছিলেন বসুন্ধরা কিংসের সভাপতি, ‘আমরা আবেদন করলেই যে এএফসি অনুমোদন দিয়ে দেবে, তা নয়। কারণ, এখানে অনেক বিষয় জড়িত আছে। প্রতিদিন দুটি করে ম্যাচ হবে। ঢাকায় আমাদের ভেন্যু একটা। আবার গ্রুপের শেষ ম্যাচ দুটি হতে হবে একই সময়। তখন আমরা কিভাবে করবো? তাছাড়া ওই সময় করোনাভাইরাসের পরিস্থিতি কেমন থাকে, সেটাও একটা বড় বিষয়।’

 

ইমরুল হাসান যোগ করেন, ‘দলগুলো তিনদিন আগে আসবে। সবার কোভিড-১৯ পরীক্ষা, আইসোলেশনের ব্যবস্থা করা, নিরাপত্তা, চিকিৎসা–অনেক বিষয় জড়িয়ে আছে এখানে। তার চেয়ে ভালো আমরা দলের অনুশীলন নিয়ে মাথা ঘামাই। খেলা যেখানেই হোক খেলে আসবো।’

 

বসুন্ধরা আগ্রহী না হওয়ায় অন্য তিন দলের মধ্যে যারা আগ্রহ প্রকাশ করবে, এএফসি সবকিছু পর্যবেক্ষণ করে ৩১ জুলাই আয়োজ নির্ধারণ করে জানিয়ে দেবে।

শেয়ার করুন :