আকরাম খানের বিশ্বাস, ওয়েস্ট ইন্ডিজ আসবে ঢাকায় আকরাম খানের বিশ্বাস, ওয়েস্ট ইন্ডিজ আসবে ঢাকায় – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর প্রতিবেদক :: অন্য সময় হলে এসব কথাবার্তার কোনো প্রয়োজনই হতো না। সূচি মেনেই এক দেশে অন্য দেশে খেলতে যেতো। ওলট-পালট হতো না কোনোও সূচিতে। কিন্তু এবার পরিস্থিতি ভিন্ন। এক মহামারির কবলে পড়ে বিপর্যস্ত বিশ্ব। এর বাইরে নয় ক্রিকেটও।

 

আগামী জানুয়ারিতে বাংলাদেশ সফরে আসার কথা ওয়েস্ট ইন্ডিজ জাতীয় দলের। সফরে ক্যারিবিয়ানরা স্বাগতিকদের বিপক্ষে খেলবে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ। এর মধ্যে রয়েছে তিনটি টেস্ট ম্যাচ, তিনটি ওয়ানডে ও দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ।

 

করোনাভাইরাসের কারণে বাংলাদেশের একাধিক সিরিজ স্থগিত হয়ে গেছে। এ ভাইরাসের কারণেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ ঢাকায় আসবে কী-না, এ নিয়ে খানিকটা সংশয় আছে।

 

তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) নিয়মিত যোগাযোগ রাখছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোর্ডের সাথে। ইতোমধ্যেই জৈব সুরক্ষা বলয়ের (বায়ো বাবল) একটি পরিকল্পনা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পাঠানো হয়েছে।

 

বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়াারম্যান আকরাম খান বলছেন, ওয়েস্ট ইন্ডিজ খেলতে ঢাকায় আসবে, এ ব্যাপারে তারা আত্মবিশ্বাসী।

 

বর্তমানে বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হয়। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য এক্ষেত্রে কোয়ারেন্টিনে ছাড় দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে বিসিবি। সফরকারীদের কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ হবে ৭ দিন। কেননা, এর বেশি কোয়ারেন্টিনে থাকতে রাজি নয় কোনো দলই।

 

সরকারের কাছ থেকে ৭ দিনের কোয়ারেন্টিনের অনুমতি যদি না মেলে, তবে বিসিবি ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনকালে অনুশীলনের অনুমতি চাইবে।

 

তবে বাংলাদেশ জাতীয় দলের প্রধান কোচ, বোলিং কোচ, ফিল্ডিং কোচ বিদেশ থেকে আসার পর স্বল্পমেয়াদী কোয়ারেন্টিনে ছিলেন। সরকার এক্ষেত্রে তাদের জন্য ছাড় দিয়েছে। ফলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্যও ছাড় পাওয়ার আশা করছে বিসিবি।

 

আকরাম খান সংবাদমাধ্যমকে বলছিলেন, ‘আমরা এরই মধ্যে বায়ো বাবল নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা করছি। তাদেরকে একটি পরিকল্পনাও দেয়া হয়েছে। এরপর আমরা সরকারের কাছে অনুমতি চেয়ে পরিকল্পনা পাঠাবো।’

 

বিসিবি সূত্র জানিয়েছে, ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল ঢাকায় আসার আগে নিজ দেশে করোনাভাইরাস পরীক্ষা করিয়ে আসবে। যারা নেগেটিভ হবেন, শুধুমাত্র তারাই আসবেন ঢাকায়। এখানে আসার পর কোয়ারেন্টিনের সময়ে একাধিকবার পরীক্ষা করানো হবে ক্যারিবিয়ানদের। এছাড়া সিরিজ চলাকালেও একাধিকবার হবে পরীক্ষা।

 

করোনা পরিস্থিতিতে জেসন হোল্ডার-আন্দ্রে রাসেলদের সফর নিয়ে কিছুটা অনিশ্চয়তা আছে। কিন্তু আকরাম খান এক্ষেত্রে আত্মবিশ্বাসী ওয়েস্ট ইন্ডিজের ওপর ভরসা করে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ যাতে সফর নিয়ে দোটানায় না থাকে, সেজন্য চলতি মাসেই বঙ্গবন্ধু কাপ টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট সফলভাবে আয়োজন করতে চায় বিসিবি।

 

যেমনটি বলছিলেন আকরাম খান, ‘আমি ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর বলেই আত্মবিশ্বাসী। তারা আসবে আমি নিশ্চিত। তবে তার আগে আমরা টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টটা সফলভাবে আয়োজন করতে চাই।’

 

পাঁচ দলের অংশগ্রহণে নভেম্বরের ২১ বা ২২ তারিখ থেকে শুরু হতে পারে টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট। এই টুর্নামেন্ট টিভিতেও সম্প্রচার করা হবে। ক্রিকেটারদের রাখা হবে জৈব সুরক্ষা বলয়ে।

 

এই টুর্নামেন্টে ৫ বিভাগের প্রতিনিধিত্ব করবে ৫টি দল। স্পন্সরের সঙ্গে মিলিয়ে দলগুলির নাম- ফরচুন বরিশাল, বেক্সিমকো ঢাকা, মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী, জেমকন খুলনা ও গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। আগামী বৃহস্পতিবার হবে টুর্নামেন্টের প্লেয়ার্স ড্রাফট।

শেয়ার করুন :