আইপিএল: যার হাতে ওঠলো যে পুরস্কার আইপিএল: যার হাতে ওঠলো যে পুরস্কার – SportsTour24

স্পোর্টসট্যুর ডেস্ক :: ১৯ সেপ্টেম্বর যে ক্রিকেট উৎসবের শুরু, ১০ নভেম্বর সেই উৎসবের সমাপ্তি। ৫৩ দিনের ক্রিকেট উৎসবের শেষটা রাঙিয়ে দিয়ে পঞ্চম শিরোপা জিতেছে মুম্বাই ইন্ডিয়ানস।

 

করোনাভাইরাসের কারণে এবার ভারতে না হয়ে আইপিএলের ১৩তম আসর হয়েছে আরব আমিরাতে। দর্শকশূন্য মাঠেই হয়েছে সবক’টি খেলা।

 

এবারের আইপিএলে সেরা ব্যাটসম্যান, সেরা বোলার কারা হলেন? কিংবা সম্ভাবনায় তরুণ ক্রিকেটার, সবচেয়ে বেশি ছক্কা, টুর্নামেন্ট সেরা হলেন কারা?

দেখে নেওয়া যাক…

 

*সবচেয়ে বেশি রান: আইপিএল ২০২০-এ ৫০০-এর বেশি রান করেছেন ছয়জন ব্যাটসম্যান। এর মধ্যে দুজন করেছেন ৬০০-এর বেশি রান। কিন্তু ৬৭০ রান করে সবাইকে টপকে গেছেন কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের লোকেশ রাহুল।

 

এবারের আইপিএলটা দলগতভাবে পাঞ্জাবের জন্য ভালো ছিল না। গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নেয় তারা। কিন্তু গ্রুপের ১৪ ম্যাচেই ধারাবাহিকভাবে রান করে সবচেয়ে বেশি রানের মালিক হয়েছেন রাহুল।

 

টুর্নামেন্টে এবার ৫০০-র বেশি রান করা ছয়জন ব্যাটসম্যান হলেন- কুইন্টন ডি কক (৫০৩), ইশান কিশান (৫১৬), শ্রেয়াস আইয়ার (৫১৯), ডেভিড ওয়ার্নার (৫৪৮), শিখর ধাওয়ান (৬১৮) ও লোকেশ রাহুল (৬৭০)।

 

লোকেশ রাহুল ৫৫.৮৩ গড়ে ১ সেঞ্চুরি ও ৫ ফিফটিতে ৬৭০ রান করেন। সবচেয়ে বেশি রান করা ব্যাটসম্যানের পুরস্কার কমলা টুপি বা অরেঞ্জ ক্যাপ ওঠেছে তার মাথায়ই।

 

*সবচেয়ে বেশি উইকেট: টুর্নামেন্টে যে বোলার সবচেয়ে বেশি উইকেট শিকার করেন, তার মাথায় ওঠে পার্পল ক্যাপ বা বেগুনি টুপি। এই ক্যাপ নিজের করে নিয়েছেন দিল্লি ক্যাপিট্যালসের দক্ষিণ আফ্রিকান পেস বোলার কাগিসো রাবাদা।

 

এবার টুর্নামেন্টে ২০ বা এরও বেশি উইকেট নিয়েছেন ৮ জন বোলার। তন্মধ্যে ২৫ বা এরও বেশি উইকেট পাওয়া তিন বোলার হলেন মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের কিউই পেসার ট্রেন্ট বোল্ট (২৫), একই দলের ভারতীয় জাসপ্রিত জসপ্রীত বুমরাহ (২৭), আর দিল্লির কাগিসো রাবাদা (৩০)।

 

রাবাদা বল হাতে রান আটকাতে পারেন নি, ওভারপ্রতি গুনেছেন ৮.৩৪ রান। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ সময়ে উইকেট এনে দেওয়া দিল্লিকে ফাইনালে ওঠতে সহায়তা করে।

 

*পাওয়ার প্লেয়ার অব দ্য সিজন: পাওয়ার প্লেতে, অর্থাৎ প্রথম ছয় ওভারের মধ্যে উইকেট নিয়ে প্রতিপক্ষকে নাড়িয়ে দেওয়ার সামর্থ্যে কোন বোলার এগিয়ে, সেটাও বিবেচনা করেন আইপিএলের জুরি বোর্ডের সদস্যরা। এই সামর্থ্যে এবার সবচেয়ে বেশি এগিয়ে মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের ট্রেন্ট বোল্ট।

 

টুর্নামেন্টে বোল্ট যে ২৫ উইকেট শিকার করেছেন, এর ১৬টিই এই বাঁহাতি কিউই ফাস্ট বোলার নিয়েছেন ম্যাচের প্রথম ছয় ওভারের মধ্যে। ফলে তিনিই হয়েছেন এবারের পাওয়ার প্লেয়ার অব দ্য সিজন।

 

*সবচেয়ে বেশি ছক্কা: টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন হলো ‘ছক্কা’। এবারের আইপিএলে ১০ জন ব্যাটসম্যান মেরেছেন ২০টির বেশি ছক্কা। এর মধ্যে মাত্র একজন, মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের ইশান কিষান ৩০টি ছক্কা হাঁকিয়েছেন। টুর্নামেন্টে ৫১৬ রান করার পথে ছক্কা থেকেই তিনি নিয়েছেন ১৮০ রান!

 

এক্ষেত্রে ক্রিস গেইলের কিছুটা আক্ষেপ থাকতে পারে। এই ক্যারিবিয়ান মাত্র ৭ ম্যাচেই মেরেছেন ২৩টি ছক্কা। কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবে শুরুর কয়েকটি ম্যাচে তাকে একাদশে রাখা হয়নি। সব ম্যাচ খেলতে পারলে ছক্কার সংখ্যাকে হয়তো সবার ধরাছোঁয়ার বাইরে নিয়ে যেতে পারতেন।

 

*সবচেয়ে বেশি স্ট্রাইক রেট: সবচেয়ে কম বলে কে সবচেয়ে বেশি রান নিতে পারেন, অর্থাৎ স্ট্রাইক রেটে এবার কে এগিয়ে? টুর্নামেন্টে ১৭০-এর বেশি স্ট্রাইক রেট আছেন ছয় ব্যাটসম্যানের। এর মধ্যে একজনের স্ট্রাইক রেট অবিশ্বাস্য-১৯১.৪২!

 

তিনি মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যান কাইরান পোলার্ড। টুর্নামেন্টে তিনি রান করেছেন ২৬৮, যেখানে ছিল ১৯১.৪২ স্ট্রাইক রেট। এবার তাই ‘সুপার স্ট্রাইকার অব দ্য সিজন’ পুরস্কারটাও গেছে পোলার্ডের দখলে।

 

*সম্ভাবনাময় তরুণ খেলোয়াড়: এই পুরস্কার জিতেছেন রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর দেবদূত পাড়িক্কাল। ১৫ ম্যাচে পাঁচটি ফিফটিসহ ৪৭৩ রান করেন তিনি।

 

*টুর্নামেন্ট সেরা: তার পরিচয় পেস বোলার। কিন্তু ব্যাট হাতেও কম যাননি তিনি। বলা হচ্ছে রাজস্থান রয়্যালসের ইংলিশ ফাস্ট বোলার জফরা আর্চারের কথা। আইপিএলে ২০ উইকেট নিয়েছেন, ডট বল করেছেন ১৭৫টি, ক্যাচ ধরেছেন ৫টি। এর সাথে ব্যাট হাতে ঝড় তুলে মেরেছেন ১০টি ছক্কাও! তিনি ছাড়া আর কে হাতে পারেন টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় বা মোস্ট ভ্যালুড প্লেয়ার (এমভিপি)।

শেয়ার করুন :